Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

অফিসের কাজের চাপ প্রভাব ফেলছে দাম্পত্যে? সতর্ক হোন এখনই

দিনের পর দিন ক্রমাগত কাজের চাপ বাড়তে থাকলে তার প্রভাব পড়ে সম্পর্কের ওপর

আপডেট : ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১২:৩৭ পিএম

কাজের চাপ যত বাড়ছে, ততই বাড়ছে আমাদের মানসিক চাপ। আর তার সঙ্গেই পাল্লা দিয়ে কমছে স্বামী-স্ত্রীর সঙ্গে একান্তে কাটানোর সময়।

দিনের পর দিন ক্রমাগত কাজের চাপ বাড়তে থাকলে তার প্রভাব পড়ে সম্পর্কের ওপর। গবেষণা বলছে, যেসব দম্পতির জীবনে “ওয়ার্ক-লাইফ ব্যালান্স” অনুপস্থিত তাদের সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত হয় সবচেয়ে বেশি। কিন্তু কাজের চাপ বা তার সঙ্গে যুক্ত মানসিক চাপ, কোনোটাই যেহেতু খুব একটা এড়ানোর সুযোগ নেই, তাই সম্পর্কটাকেই সুস্থ রাখার চেষ্টা করাটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

অফিসের কাজ চাপ যাতে আপনার দাম্পত্যজীবনে অশান্তির ছায়া ফেলতে না পারে, সেজন্য সতর্ক হোন এখনই। মেনে চলুন কিছু বিষয়-

সঙ্গীর ওপর ঝাল ঝাড়বেন না

হতেই পারে সারাটা দিন আপনার ওপর দিয়ে অফিসে ঝড় বয়ে গেছে, কিন্তু তার জের যেন বাড়ি ফিরে সঙ্গীর ওপর না পড়ে! কর্মক্ষেত্রে অশান্তির দায় সঙ্গীর ওপর চাপাবেন না। কারণ, তাতে আপনার অফিসের পরিস্থিতির উন্নতি তো হবেই না, মাঝখান থেকে দাম্পত্য সম্পর্কটাও ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

মেজাজের ওপর নিয়ন্ত্রণ রাখুন

অফিসে প্রবল স্ট্রেস থাকলে তার জের বাড়িতেও পড়ে, এ কথা সত্যি। সবসময় মেজাজ ঠিক থাকে না, তাও ঠিক। মাঝেমাঝে চেঁচিয়ে ফেললে ঠিক আছে, কিন্তু কখন থামতে হবে, সেটাও মাথায় রাখা দরকার। বাড়িতে ঘ্যানঘ্যান করলে বা চিত্কার চেঁচামেচি করলে আপনার অফিসের পরিস্থিতি ঠিক হয়ে যাবে না সেটি মাথায় রাখুন।

সঙ্গীর সঙ্গে খোলামেলা কথা বলুন

আপনার মনের অবস্থা কেমন, সেটা সঙ্গীকে জানতে দিন। কোনো গোপন করবেন না। সঙ্গী সব জানলে আপনার অবস্থাটা বুঝতে সহজ হবে।

নিজেকে সময় দিন

মানসিক চাপ সামলাতে নিজেকে সময় দেওয়াটা জরুরি। তাতে নিজের অবস্থান সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা তৈরি হয়, ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা করতেও সুবিধা হয়। তবে নিজেকে সময় দিতে গিয়ে দীর্ঘসময় একা থাকার অভ্যাস করে ফেলবেন না। তাতে সঙ্গী মনে করতে পারেন আপনি তাকে এড়িয়ে চলছেন।

অফিসটাকে মাথায় ঢুকিয়ে রাখবেন না

অফিসের জীবন আর ব্যক্তিগত জীবনের মধ্যে একটা স্পষ্ট সীমারেখা টানুন এবং সেটা মেনে চলুন।  বাড়িতে থাকাকালীন অফিসের কোনো কাজ না করার চেষ্টা করুন। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া অফিসের ফোন বা ইমেইল এড়িয়ে চলুন। ছুটির সময়টা পুরোটাই আপনার পরিবারকে দিন। কাজের চাপ কাটিয়ে চনমনে হয়ে উঠতে এই ব্রেকটা খুব দরকার।

সূত্র: ফেমিনা

About

Popular Links