Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সঠিক বেতনটাই চান

  • 'বেতন বাড়ানোর কথা বললেই চাকরি চলে যাবে' এমনটা ভাবার কোনো কারণ নেই
  • উপযুক্ত বেতন না পেলে আপনার কাজ করার উৎসাহটা কমে যেতে পারে
আপডেট : ১৯ মার্চ ২০২৪, ০২:২৭ পিএম

যদি প্রশ্ন করা হয়, আপনার মূল্য আসলে কত? অথবা একটু ঘুরিয়ে বললে, চাকরির বিনিময়ে মাস শেষে যে বেতনটা পাচ্ছেন তাতে কি আপনার সঠিক মূল্যায়ন হচ্ছে? কিংবা প্রতিদিন যেভাবে দ্রব্যমূল্য বাড়ছে, বছর শেষে সেই অনুপাতে আপনার বেতন কি বাড়ছে?

যদি এসব প্রশ্নের উত্তর “না” হয়, তাহলে আপনার উচিত অফিসের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলা। অন্যথায়, এরকম চলতে থাকলে আপনার কাজ করার উৎসাহটা কমে যেতে পারে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

তবে, বেতন বাড়ানোর বিষয় নিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলতে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কর্মীরা ভয় পান। তাদের মধ্যে চাকরি হারানোর ভয় কাজ করে। যদিও এরকমটা ভাবার কোনো কারণ নেই বলে মনে করেন সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা।

এ বিষয়ে পেশাদার নেটওয়ার্কিং সাইট দি ডটস এর প্রতিষ্ঠাতা পপি জেমিসন যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, “বেতন বাড়ানোর কথা বললেই চাকরি চলে যাবে-এমনটা ভাবার কোনো কারণ নেই।”

তবে, বেতন বাড়ানোর বিষয়ে কথা বলার ক্ষেত্রে আপনাকে একটু কৌশলী হতেই হবে। এক্ষেত্রে কিছু বিষয় একটু কায়দা করে উপস্থাপন করতে হবে, আর কিছু বিষয় একদমই এড়িয়ে যেতে হবে। চলুন, বিবিসি বাংলা অবলম্বনে জেনে নেওয়া যাক এরকম কিছু কৌশল সম্পর্কে-

ভালোভাবে গবেষণা করা

আপনার পদ অনুযায়ী আপনার বেতনটা ঠিক আছে কি-না, সেটি ভালোভাবে জানার চেষ্টা করুন। প্রয়োজনে এ বিষয়ে আপনি অন্যদের সঙ্গে আলাপ করে সঠিক তথ্যটা জানুন।

অফিসের সহকর্মী, এডমিনের লোকজন, বিভিন্ন নিয়োগ এজেন্সিসহ, একই ধরনের অন্য অফিসে কর্মরতদের সঙ্গে আলাপ করে জানার চেষ্টা করুন যে, আপনার পদে বেতনটা সাধারণত ঠিক কেমন হয়। ভালোভাবে জানা-বোঝার পর নিজের মূল্য হাঁকান।

অপরিকল্পিতভাবে বেতন বাড়াতে না বলা

খরচ বেড়েছে, ব্যয় নির্বাহ আর করতে পারছেন না এসব কথা বলবেন না। বরং আপনার কাজ আপনার কোম্পানিকে কীভাবে উপকৃত করছে সেটি ব্যাখ্যা করে বেতন বাড়াতে বলুন।

ভালো সময় বেছে নেওয়া

হুটহাট করে বেতন বাড়াতে না বলাই শ্রেয়। এই দাবি জানাবার জন্যও একটা উপযুক্ত সময় বেছে নিতে হবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যখন কোম্পানি একটা বড় সাফল্য পায় তখন অথবা যখন প্রতিষ্ঠানের বাজেট প্রণয়নের কাজ চলে সময়টাতে বেতন বাড়াতে বলাটা সবচেয়ে ভালো।

ঘন-ঘন বেতন বাড়ানোর কথা না বলা

যদি বছরখানেক আগেই আপনার বেতন বেড়ে থাকে তাহলে নিজের একটু রাশ টেনে ধরুন। ইচ্ছে হলেও খুব ঘন-ঘন বেতন বাড়াতে বলাটা ঠিক নয়।

বেতন কাঠামো

আজকাল অধিকাংশ কোম্পানিই বেতন কাঠামো ঠিক করে নেয়। ফলে, অনেকক্ষেত্রেই ব্যক্তিগত জায়গা থেকে দর কষাকষির সুযোগ থাকে না। তাই কোম্পানির পলিসি জেনে বেতন দাবি করুন।

আপনি যে গ্রেডে আছেন তারচেয়ে বেশি কিছু চান

“বেতনটা আরেকটু বাড়িয়ে দিন” বলাটা সমীচীন নয় বলেই মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। বেতন যদি বাড়াতেই হয়, তাহরে বরং আপনি বর্তমানে যে গ্রেডে বেতন পাচ্ছেন তারচেয়ে উপরের গ্রেডের বেতন চাওয়াই শ্রেয়।

আত্মবিশ্বাসী হোন

বেতন নিয়ে দর-কষাকষির সময় আত্মবিশ্বাসী থাকুন। নিজের যুক্তি জোরালো ভাবে উপস্থাপন করুন। নিজের বেতন বাড়ানোর বিষয়ে দর কষাকষি করার সময় মোটেও ঘাবড়ে যাবেন না। কথা বলতে গিয়ে ইতস্তত বা উসখুস করবেন না। কথা বলার সময় থতমত খাবেন না। আবার অস্বস্তি কাটানোর জন্য হড়বড় করে অনেক কথা বলারও দরকার নেই।

সঠিক বেতনটাই চান

যা কিছু একটা পরিমাণ বেতন বাড়িয়ে দিতে বলার চেয়ে, একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ বেতন বাড়াতে বলাটা বেশি কার্যকর। এমনটিই দেখা গেছে কলাম্বিয়া বিজনেস স্কুলের একটি গবেষণায়। তাই, আপনিও নিজের জন্য একটি পরিমাণ নির্ধারণ করে নিন। তারপর সেটিই দাবি করুন।

অস্পষ্টতা এড়িয়ে চলুন

বেতন বাড়াতে বলার সময় অস্পষ্টভাবে কথা বলা এড়িয়ে চলুন। স্পষ্টভাবে বলুন ঠিক কত ভাগ বা কত টাকা বেতন বাড়াতে চান। কারণ, জানতে চাইলে এর একটি ব্যাখ্যাও তৈরি রাখুন।

ভবিষ্যতের কথা বলুন

একটি অফিসে কাজ মানে তো আর শুধু বেতন নয়। সেখানে আরও নানা বিষয় থাকে। অফিসে কর্মঘণ্টার নমনীয়তা, ছুটির দিন ইত্যাদি বিষয়ও যে অফিসে কাজের আনন্দকে বাড়াতে পারে বা কমাতে পারে তা নিয়েও কথা বলুন। প্রয়োজনে বেতন বাড়ানোর পাশাপাশি আপনার পদবীতেও পরিবর্তন আনতে বলুন।

হাল ছাড়বেন না

প্রতিযোগিতার এই বাজারে হয়তো কোনো কারণে মালিকপক্ষ আপনার মেধা, যোগ্যতা, বিশেষত্বকে একবারে মূল্যায়ন করতে নাও পারে। তাতে উদ্যম হারাবেন না। নিজের যোগ্যতা যত বাড়বে, ভালো কোম্পানি ততই উঁচু দামে যোগ্য কর্মীকে নিজেদের দলে টেনে নেবে।

About

Popular Links