Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

গরমেও গোসল করতে ইচ্ছে করে না, মনে অন্যকিছু বাসা বাঁধেনি তো?

হয়ত ঘণ্টার পর ঘণ্টা কমোডের ওপর বসেই রয়েছেন

আপডেট : ০৭ মে ২০২৪, ০৫:৩৭ পিএম

গরমে স্বস্তি পেতে গোসলকেই সবচেয়ে মোক্ষম উপায় হিসেবে বেছে নেন বেশিরভাগ মানুষ। তবে কেউ কেউ আছেন যারা তীব্র গরমেও গোসল করতে চান না; আর শীতে তো কথাই নেই। তবে, সবসময় এটিকে খুব সাধারণ কোনো বিষয় হিসেবে দেখার সুযোগ নেই। কারণ, এর পেছনেও হয়ত লুকিয়ে আছে অবসাদজনিত মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অবসাদ বা মনখারাপ হলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় ব্যক্তিগত পরিচ্ছন্নতা। এর প্রভাবে কারও সঙ্গে কথা বলা, দাঁত মাজা, গোসল করা, খাওয়া, রান্না কিংবা পড়াশোনা করার মতো সাধারণ বিষয়গুলোর প্রতিও অনীহা জন্মায়।

এ বিষয়ে ভারতীয় মনোবিদ দেবশীলা বসু দেশটির আনন্দবাজার পত্রিকাকে বলেন, “অবসাদের কারণে শুধু গোসল কেন, খুব সাধারণ যে কাজগুলো আমাদের সকালে ঘুম থেকে উঠেই করতে হয়, সেগুলোও করতে ইচ্ছে করে না। হয়ত কোনোমতে শরীরটাকে টেনে নিয়ে গিয়েছেন শৌচাগারে। কিন্তু ঘণ্টার পর ঘণ্টা কমোডের ওপর বসেই রয়েছেন। কল খুলে দিয়েছেন, পানি ভরে বালতি উপচে গেলেও কোনো হুঁশ থাকছে না। অবসাদগ্রস্ত রোগীদের মধ্যে এমন ধরনের উপসর্গ খুবই সাধারণ।”

মনখারাপের সঙ্গে গোসলের সংযোগ

মানসিক স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, গোসল করার আগে ও পরে অনেকগুলো কাজ থাকে। বালতিতে পানি নেওয়া থেকে গায়ে পানি ঢালা, সাবান, শ্যাম্পু-কন্ডিশনার মাখা। আবার, মাথা ধোয়া, তারপর গা মোছা। গোসল সেরে কী পরবেন তা ঠিক করা। তারপর ভেজা তোয়ালে শুকাতে দেওয়া কিংবা চুল শুকোনো।

এই এত কাজ একসঙ্গে করার মতো ইচ্ছেশক্তি মনখারাপ বা অবসাদের কারণে থাকে না। তাই মনখারাপ থাকলে গোসল করার মতো সাধারণ কাজটিও ভীষণ পরিশ্রমের কিংবা কঠিন বলে মনে হয়।

সমস্যা থেকে মুক্তির উপায়

অবসাদ গ্রাস করলে এই ধরনের স্বাভাবিক কাজকর্ম করতে ইচ্ছে নাও করতে পারে। তবে, এই ধরনের উপসর্গ যদি দীর্ঘদিন হয় সেক্ষেত্রে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। কারণ, দীর্ঘদিন ধরে অপরিচ্ছন্ন থাকার অভ্যাসে নানারকম শারীরিক রোগ বাসা বাঁধতে পারে। সেই সঙ্গে দেখা দিতে পারে বিষণ্ণতাজনিত বিভিন্ন মানসিক রোগ।

About

Popular Links