Tuesday, June 18, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

কোরবানির দিনে ছুরি-চাকুসহ যা প্রয়োজন, পাবেন যেখানে

সারাদিনের ব্যস্ততা অনেকাংশেই কমে যাবে যদি আগে থেকেই থাকেন প্রস্তুত

আপডেট : ১১ জুন ২০২৪, ০৩:৩৫ পিএম

দুয়ারে কড়া নাড়ছে ঈদ-উল-আজহা। মুসলিম বিশ্বের অন্যতম এই উৎসবের পুরোটাই পশু কোরবানিকে কেন্দ্র করে। ঈদের সারাদিনের ব্যস্ততা অনেকাংশেই কমে যাবে যদি আগে থেকেই প্রস্তুত থাকেন। কোরবানির শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতির জন্য বিশেষ কিছু টিপস পাঠকদের জন্য-

কসাই: কোরবানির আগেই কসাই ঠিক করে রাখুন। ঈদের দিনে কসাই খুঁজে পাওয়া কঠিন একটি কাজ। অনেক সময় দেখা যায়, পশু কোরবানি হয়ে পড়ে আছে কিন্তু কসাইয়ের অভাবে মাংস কাটা হচ্ছে না। তাই আগেই সময় এবং দামাদামি ঠিক করে রাখুন কসাইয়ের সঙ্গে। তবে অবশ্যই পেশাদার কসাইয়ের সঙ্গে কথা বলুন। এক্ষেত্রে এলাকার মাংসের দোকানে কসাইদের সঙ্গে কথা বরতে পারেন। এছাড়া আজকাল বিভিন্ন অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকেও কসাই বুকিং দেওয়া যায়।

চাপাতি: কোরবানির মাংস কাটার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জিনিস চাপাতি। শক্ত হাড় কাটায় চাপাতির জুড়ি নেই। আপনার ঘরে পুরোনো চাপাতি থাকলে তা ঈদের আগেই ধার করে রাখুন আর না থাকলে নতুন চাপাতি কিনে ফেলুন। ২০০ থেকে ১ হাজার টাকার মধ্যে ভালো চাপাতি পেয়ে যাবেন।

ছুরি: কোরবানির পশুর চামড়া ছাড়ানোর জন্য ছুরি বা মাংস টুকরা করায় ছুরির দরকার পড়ে। তাই বাসায় ভালো লোহার ছুরি আছে কিনা দেখে নিন। না থাকলে কিনে ফেলুন আর থাকলে ভালো মতো শান দিয়ে রাখুন।

দা/বটি: কোরবানির মাংসকে ছোট ছোট করে কাটার জন্য দা বা বটি অবশ্যই প্রয়োজন তাই হাতের কাছে না থাকলে ধার করে প্রস্তুত রাখুন।

মাংস কাটার খাটিয়া: কসাইরা সাধারণত মাংস কাটার জন্য কাঠের খাটিয়া ব্যবহার করে থাকে। কসাইয়ের সঙ্গে আগেই কথা বলে রাখুন। যদি কসাই খাটিয়া না নিয়ে আসে তাহলে আগেই কিনে রাখুন। ৫০ থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৫০০ টাকার মধ্যে বিভিন্ন মাপের ও ওজনের খাটিয়া বাজারে পাওয়া যায়। তেঁতুল গাছের কাঠ অত্যন্ত শক্ত ও মজবুত হওয়ায় সাধারণত তেঁতুল কাঠ দিয়ে খাটিয়া তৈরি করা হয়।

পাটি: মাংস কাটার জন্য ও রাখার জন্য বড় বড় পাটি বাজারে পাওয়া যায়। তাই ঈদের আগেই পাটি কিনে রাখুন এবং ব্যবহারের পর যেখানে সেখানে না ফেলে নির্দিষ্ট স্থানে ফেলুন।

ফার্স্ট এইড: মাংস কাটার সময় হাত-পা কাটার মতো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই আগে থেকেই ব্যান্ডেজ, স্যাভলন, তুলা কিনে হাতের কাছে রেখে দিন। বড় কোনো দুর্ঘটনায় দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন।

ব্লিচিং পাউডার: পশু জবাই ও মাংস কাটার পর জায়গাটি ভালো মতো পানি দিয়ে ধুয়ে ব্লিচিং পাউডার ছড়িয়ে দিন। এতে গন্ধ ও রোগ-জীবানু ছড়াবে না। তাই যথেষ্ট পরিমাণ ব্লিচিং পাউডার কিনে রাখুন।

সর্বোপরি, গতবারের ব্যবহৃত চাপাতি-দা-ছুরিগুলোতে যদি মরিচা পড়ে থাকে তবে ৩০ থেকে ৫০ টাকায় শাণ দিতে পারবেন। আর এ বছরের কাজ শেষে সব যন্ত্রপাতি পরিষ্কার করে রোদে শুকিয়ে নারকেল তেল মাখিয়ে রেখে দিতে পারেন পরবর্তী বছরের জন্য। তাতে মরিচা পড়ার ভয় থাকবে না।

কোথায় পাবেন

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে আছে এসব যন্ত্রপাতির বিশাল সংগ্রহ। কারওয়ান বাজারের কামারের দোকানগুলো থেকে শুরু করে কিচেন মার্কেট (দোতলা), কারওয়ান বাজার রেলগেট মার্কেট, নিউমার্কেট, পুরান ঢাকার চকবাজারে পাবেন এসব যন্ত্রপাতি। এছাড়া ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে নিজ নিজ এলাকার বাজারগুলোতে খোঁজ নিলেই পেয়ে যাবেন এসব সরঞ্জাম।

About

Popular Links