• বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৯ সকাল

বঙ্গবন্ধুর অটোগ্রাফ আগলে রেখেছেন এক বৃদ্ধা

  • প্রকাশিত ০৪:৩০ বিকেল আগস্ট ২৯, ২০১৮
বঙ্গবন্ধুর অটোগ্রাফ আগলে রেখেছেন এক বৃদ্ধা
আফরোজা মামুন চৌধুরীর ডায়রিতে এখনও রয়েছে বঙ্গবন্ধুর দেওয়া অটোগ্রাফ। আব্দুর রউফ পাভেল/ ঢাকা ট্রিবিউন

১৯৭৩ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারির বঙ্গবন্ধুর অটোগ্রাফ নিয়েছিলেন নওগাঁর স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কন্ঠ শিল্পী আফরোজা মামুন চৌধুরী।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মোট তিন বার এসেছিলেন নওগাঁয়। প্রথমবার নওগাঁ এসেছিলেন ১৯৫৩ সালের ১১ জানুয়ারি। 

স্থানীয়রা জানান, প্রথামবার বঙ্গবন্ধু নওগাঁয় আসলে নওগাঁ মহকুমা আওয়ামী মুসলিম লীগ গঠিত হয়। 

বঙ্গবন্ধু দ্বিতীয়বার নওগাঁয় এসেছিলেন ১৯৭০ সালের নির্বাচনের আগে। সেই সময় তিনি ৩ দিন নওগাঁয় অবস্থান করেছিলেন। 

শেষ বারের মত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নওগাঁ এসেছিলেন ১৯৭৩ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি। ওই দিন বিকেলে নওগাঁর দীঘলির বিলে এক বিশাল জনসভায় বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু।

১৯৭৩ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারির দিনটির কথা স্মরণ করে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কন্ঠ শিল্পী আফরোজা মামুন চৌধুরী বলেন, ‘ওইদিন আমি ও আমার স্বামী রাজা চৌধুরী বঙ্গবন্ধুর জনসভায় গান পরিবেশন করেছিলাম। গান শেষে আমি বহু কষ্টে বঙ্গবন্ধুর কাছে যাই। বঙ্গবন্ধু আমাকে জিঙ্গাসা করেন, আমি কিছু বলতে চাই কিনা। আমি উনার কাছে একটা অটোগ্রাফ চেয়েছিলাম। উনি আমাকে সাথে-সাথেই একটি অটোগ্রাফ দেন। আমি সেদিনের কথা কখনো ভুলতে পারবো না। হাজারো জনতা সেদিন বঙ্গবন্ধুকে দেখতে ও তাঁর কথাশুনতে এসেছিলো দীঘলির বিলে।’

নওগাঁর মুক্তিযোদ্ধারা জানান, বঙ্গবন্ধুর সেই দীঘলির বিলের জনসভা নওগাঁর ইতিহাসে এখও স্মরনীয়। ওই জনসমাগমের মত বড় আর কোন সমাগম ঘটেনি এখনও। তারা জানান, বঙ্গবন্ধুর আগমনের আরো বেশ কিছু দৃশ্যমান স্মৃতি রয়েছে নওগাঁয়। তাঁর নামে শহরে একটি বঙ্গবন্ধু সড়ক রয়েছে। তাঁর স্মরনে দীঘলির বিলের পাশে স্থানীয়রা তালগাছ রোপন করেছেন। মুক্তিযোদ্ধারা দাবী জানান, নওগাঁ এটিএম মাঠে যেহেতু বঙ্গবন্ধু জনসভা করেছিলেন সেই মাঠটির নামকরণ বঙ্গবন্ধুর নামে করা হউক।