• বুধবার, নভেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৯ রাত

মাশালিয়ার শতবর্ষী বটতলায় নৌকা তৈরির ধুম

  • প্রকাশিত ১২:২২ দুপুর সেপ্টেম্বর ৬, ২০১৯
রাজবাড়ী নৌকা
রাজবাড়ীর মাশালিয়া বাজারের ঐতিহ্যবাহী বটপাকুরতলায় নৌকা তৈরি করছেন মিস্ত্রিরা ঢাকা ট্রিবিউন

বংশ পরম্পরায় এখানকার কাঠমিস্ত্রীরা বিভিন্ন আকৃতির নৌকা বানিয়ে আসছেন

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার মাশালিয়া বাজারে প্রতিবছরের মতো এবারও বর্ষা মৌসুম শুরুর পর থেকেই ছোট-বড় বিভিন্ন ধরনের নৌকা তৈরির কাজ চলছে মহাসমারোহে। ঐতিহ্যবাহী পদ্ধতিতে বিভিন্ন গাছের কাঠ চেরাইয়ের পর রোদে শুকিয়ে পেরেক ঠুকে বাজারের শতবর্ষী বটপাকুর গাছের ছায়ায় নৌকা তৈরির কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন নির্মাতারা। 

বংশ পরম্পরায় মাশালিয়া বাজারের কাঠমিস্ত্রীরা বিভিন্ন আকৃতির নৌকা বানিয়ে আসছেন। এ পেশা তুলনামূলক লাভজনক হওয়ায় তারা সন্তুষ্টও বটে। এ বাজারের তৈরি নৌকার কদর রয়েছে মাগুরা, ফরিদপুরসহ আশপাশের কয়েকটি জেলায়। এখানকার কারিগররা সাধারণত ৯ থেকে ২০ হাত পর্যন্ত লম্বা নৌকা তৈরি করে থাকেন। এগুলো বিক্রি হয় ১০ থেকে ৩০ হাজার টাকায়।

নৌকা তৈরির কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন মিস্ত্রিরা।ছবি: ঢাকা ট্রিবিউনকাঠমিস্ত্রী অমল রায় জানান, “বর্ষায় মৌসুমে নদী-খাল-বিলের পানিতে মাছ ধরা ও পারাপারের কাজে নৌকা বেশি ব্যবহৃত হয়ে থাকে। তাই বর্ষার পানির ওপর নির্ভর করে আমাদের নৌকা তৈরির কাজ ও বেচা-কেনা। প্রতিবছরই বর্ষায় নৌকা তৈরি করি আমরা।”

এ অঞ্চলের কারিগররা সাধারণত দুই ধরনের নৌকা তৈরি করে থাকেন। একটি শুধু কাঠ দিয়ে আর অন্যটি কাঠের সঙ্গে টিনের প্লেনসিট ব্যবহার। এ বছর ভালো আয়ের সম্ভাবনা দেখছেন তারা।

চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ জানান, “নৌকা তৈরির কাজ করে অনেক মিস্ত্রি তাদের সংসার চালাচ্ছেন। পুরো বর্ষা মৌসুমজুড়ে নৌকা তৈরিতে ব্যস্ত সময় কাটান তারা।”