• শনিবার, জানুয়ারী ১৮, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:২১ দুপুর

বিশ্বের বিলাসবহুল পাঁচ ট্রেন

  • প্রকাশিত ১১:২৮ সকাল নভেম্বর ২৮, ২০১৯
রোভোস ট্রেন
অত্যাধুনিক রোভোস ট্রেনটিতে রয়েছে রয়্যাল, ডিলাক্স ও পুলম্যান স্যুট। তিনটি বগি নিয়ে রয়্যাল স্যুট বানানো হয়েছে যা সম্পূর্ণ ট্রেনের অর্ধেক বগিজুড়ে। ছবি: সংগৃহীত

যেকোনও ভ্রমণের চেয়ে ট্রেন নিঃসন্দেহে একটি আনন্দময়, রোমাঞ্চিত ও অভিজাত ভ্রমণ

ট্রেন যেকোনও দেশের অর্থনীতিতে একটি বিরাট ভূমিকা পালন করে এবং এটি যোগাযোগের এক অভূতপূর্ব মাধ্যম। যেকোনও ভ্রমণের চেয়ে ট্রেন নিঃসন্দেহে একটি আনন্দময়, রোমাঞ্চিত ও অভিজাত ভ্রমণ। আজ আমরা পৃথিবীতে সবচেয়ে বিলাসবহুল ৫টি ট্রেন সম্পর্কে জানবো।

১. রোভোস ট্রেন

অত্যাধুনিক রোভোস ট্রেনটির মালিক আফ্রিকান রোহান ভোস। রোভোসের রুট হলো প্রিটোরিয়া-কেপটাউন। যাত্রাপথে প্রায় ২০০০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে হয় এই ট্রেনকে। এতে রয়েছে রয়্যাল, ডিলাক্স ও পুলম্যান স্যুট। তিনটি বগি নিয়ে রয়্যাল স্যুট বানানো হয়েছে যা সম্পূর্ণ ট্রেনের অর্ধেক বগিজুড়ে। রোভোসের কামরার অভ্যন্তর কাঠের তৈরি। ট্রেনের যাত্রী ধারণ ক্ষমতা ৭২ জন। কেউ যদি রয়্যাল স্যুটেপ্রিটোরিয়া থেকে কেপ্টাউন যেতে চায় তাহলে তাকে গুণতে হবে ২ লাখ টাকার কিছু বেশি। ট্রেনটিতে ভ্রমণের জন্য যাত্রীকে নির্দিষ্ট ড্রেসকোড পরিধান করতে হয়। যাত্রাপথে বেডরুমে বসে দুপাশের সাফারি পার্কের দৃশ্য উপভোগ করা যায়।

২. জাপানি শিকি-শামা

পাঁচ তারকা মানের আয়েশি ট্রেন শিকি-শামা পূর্ব জাপান রেলওয়ে কোম্পানির সর্বশেষ সংযোজন। ট্রেনটি চালু হয় ২০১৭ সালের ১ মে। এতে সুদক্ষ বাবুর্চি, অভিজাত বাথটাব, ইন্টারনেট, ফায়ারপ্লেসের উষ্ণতা কী নেই! একসঙ্গে ৩৪ জন যাত্রী ভ্রমণ করতে পারে। রেললাইনের দু’পাশে বিভিন্ন ধরনের সৌন্দর্যবর্ধক গাছ লাগানো হয়েছে। যাত্রীরা ভিতর থেকে এসব মনোরম দৃশ্য দেখে চোখ জুড়ায়। দক্ষ বাবুর্চি যাত্রীদের পছন্দমতো সুস্বাদু সব খাবার তৈরি করেন। এর ভাড়া জনপ্রতি মাত্র সাড়ে ৮ হাজার মার্কিন ডলার!

৩. দক্ষিণ আফ্রিকার ব্লু ট্রেন

বিলাসবহুল বেশিরভাগ ট্রেনই আফ্রিকানদের দখলে। দক্ষিণ আফ্রিকার এ ট্রেনটি চালু হয় ১৯২৩ সালে। ব্লু ট্রেনটিও রোভোসের মতো প্রিটোরিয়া থেকে কেপটাউন পর্যন্ত চলাচল করে। ব্লুর বেডরুমে যে বিছানা রয়েছে অত্যন্ত আরামদায়ক এবং মনোহর। আগে এই ট্রেনে ইংরেজরা যাতায়াত করত। আজও এর ভেতরের আসবাবপত্র আগের মতোই আছে যা আফ্রিকার প্রাচীন ইতিহাস ধারণ করছে। ব্লু ট্রেনের একটি বিশেষত্ব হলো এতে রয়েছে সমৃদ্ধ লাইব্রেরি।

৪. ঐতিহ্যবাহী সিম্পলন

বিলাসিতার পাশাপাশি ঐতিহ্যেও সিম্পলন অন্যতম। ১৮৮৩ সালে সিম্পলন 'ভেনিস সিম্পলন ওরিয়েন্ট এক্সপ্রেস' নামে যাত্রা শুরু করে। সমগ্র ইউরোপ থেকে যাত্রী নিয়ে ট্রেনটি রোমানিয়া পর্যন্ত যায়। এতে খাবার পরিবেশন করা হয় চিনামাটি ও রূপার বাসনে।

৫. গোল্ডেন ঈগল

পৃথিবীর দীর্ঘতম রেলরুটে চলাচল করে বিলাসবহুল ট্রেন গোল্ডেন ঈগল। এটি মস্কো থেকে বেইজিং পর্যন্ত সাড়ে ৫ হাজার মাইল পথ পাড়ি দেয়। ট্রেনটির ভেতরে আছে ডাইনিং কার, স্লিপিংকার প্রভৃতি। এর টিকিটের মূল্য সাড়ে ৩ লাখ থেকে ৩২ লাখ টাকা পর্যন্ত।