• রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪২ রাত

শীতে ত্বকের যত্নে দশটি খাবার

  • প্রকাশিত ১২:৪১ দুপুর ডিসেম্বর ২০, ২০১৯
খাবার
প্রতীকী ছবি সংগৃহীত

নির্দিষ্ট কিছু খাবার শীতকালে ত্বকের সমস্যা থেকে খুব সহজেই মুক্তি দিতে পারে

জাঁকিয়ে বসেছে শীত। এই ঋতুতে ত্বকে দেখা দেয় অনেক ধরনের সমস্যা। বিষয়টি যথেষ্ট চিন্তার হলেও নির্দিষ্ট কিছু খাবার ত্বকের সমস্যা থেকে খুব সহজেই মুক্তি দিতে পারে। 

শীতে ত্বকের জন্য উপকারী কিছু খাবারের নাম জেনে নেওয়া যাক-

নারিকেল: নারিকেল তেলের অনেক গুণের কথা আমরা জানি। তবে ফল হিসেবে নারিকেল খেলেও কিন্তু অনেক উপকার পাওয়া যায়। এই ফল খেলে মুখে ব্রনের সমস্যা যেমন দূর হয় তেমন ত্বকের আর্দ্রতাও ঠিক থাকে।

ওটস: এখন আমরা অনেকেই ডায়েট প্ল্যানে ওটস রাখি। তবে এটি শুধু ওজন কমাতে নয়, ত্বকের যত্নেও অনেক কার্যকরী। ওটসে আছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদান, ভিটামিন, খনিজ পদার্থ ও আঁশজাতীয় (ফাইবার) পদার্থ। ফাইবার মুখের মৃত কোষ দূর করতে সাহায্য করে। 

মিষ্টি আলু: অনেকের বেশ প্রিয় খাবার এই মিষ্টি আলু। এই আলুতে আছে প্রচুর ভিটামিন ‘এ’। যা আপনার ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখে, উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে এবং ড্যামেজ থেকে বাঁচায়।

অলিভ অয়েল: শীতে অলিভ অয়েলের ব্যবহার বেড়ে যায় বহুগুণে। এই তেল খেলেও একই উপকার পাওয়া যায়। 

গাজর: গাজরে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ পাওয়া যায়। যা কোলাজেন তৈরি করতে সাহায্য করে। কোলাজেন ত্বকের নমনীয়তা বজায় রাখে। গাজরে ভিটামিন এও পাওয়া যায় যা বলিরেখা দূর করতে বেশ কার্যকরী এবং ত্বক রাখে উজ্জ্বল ও সুন্দর। 

সবুজ শাক-সবজি: শীতকালে অনেক শাক পাওয়া যায়। শীতে ত্বকের রুক্ষ্মতা দূর করতে সবুজ শাক বেশ উপকারি।

বীজ ও বাদাম জাতীয় খাবার: বাদাম জাতীয় খাবারে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড, ভিটামিন ‘এ’, ‘বি’ ও ‘ই’ থাকে। যা এন্টিওক্সিডেন্ট হিসেবে আপনার ত্বক সতেজ রাখে। ভিটামিন ‘ই’ ত্বকের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। 

ডিম: ডিম আমিষ জাতীয় খাবারের অন্যতম প্রধান উৎস। ত্বকের নমনীয়তা রক্ষায় ডিম বেশ ভাল কার্যকর। 

পানি: শীতকালে পানি কম খাওয়া হয়। কিন্তু এটা ঠিক না। বলিরেখা দূর করতে ও ত্বকের আদ্রতা ধরে রাখতে পানি অনেক বেশি কাজে দেয়।

কম চিনিযুক্ত ফল: স্ট্রবেরি, ব্লুবেরি, ব্ল্যাকবেরির মতো কম চিনি ও বেশি পানিযুক্ত ফল শীতকালে ত্বকের যত্নে অনেক বেশি উপকারী।