• রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৩ রাত

রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়ায় আদা!

  • প্রকাশিত ০৫:২৫ সন্ধ্যা জানুয়ারী ১৫, ২০২০
আদা
সংগৃহীত

১শ’ গ্রাম আদায় রয়েছে ৮০ ক্যালরি এনার্জি, ১৭ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট, ০.৭৫ গ্রাম ফ্যাট, ৪১৫ মিলিগ্রাম পটাসিয়াম ও ৩৪ মিলিগ্রাম ফসফরাস। অর্থাত্‍, আদা মানেই একাধিক ঔষধিগুণ সম্পন্ন সুষম সবজি!

আদায় রয়েছে এমন ঔষধিগুণ যা একাধিক রোগ-ব্যাধি মোকাবিলায় সাহায্য করে।১০০ গ্রাম আদায় রয়েছে ৮০ ক্যালরি এনার্জি, ১৭ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট, ০.৭৫ গ্রাম ফ্যাট, ৪১৫ মিলিগ্রাম পটাসিয়াম আর ৩৪ মিলিগ্রাম ফসফরাস। অর্থাত্‍, আদা মানেই একাধিক ঔষধিগুণ সম্পন্ন সুষম সবজি।

আদার নানা স্বাস্থ্যগুণ সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক-

রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়ায়

আদাতে রয়েছে বেশিরভাগ ঠাণ্ডা-সর্দিজনিত রোগের পেছনে দায়ী রাইনো ভাইরাস দমনের শক্তিশালি রাসায়নিক উপাদান। এছাড়া এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এটি একটি প্রাকৃতিক ব্যথানাশক ও জ্বর প্রতিরোধী হিসেবেও কাজ করে।

ওজন কমায়

ওজন কমানোর ক্ষেত্রে মোক্ষম দাওয়াই হতে পারে আদা। আদা ক্যালরি চটজলদি বার্ন করতে সক্ষম। তাছাড়া, আদার রস কার্বোহাইড্রেট দ্রুত হজম করায়, মেটাবলিজম রেট বাড়ায়, ইনসুলিনের নিঃসরণ বাড়ায়। ফলে ওজন সহজেই নিয়ন্ত্রণে থাকে।

আর্থ্রাইটিসের ব্যথা দূর করে

আদা শরীরের জোড়াগুলোতে সৃষ্ট ব্যথা ও আর্থ্রাইটিসে আক্রান্তদের প্রদাহ দূর করে। কারণ আদাতে রয়েছে জিঞ্জারোল নামের একটি উপাদান। যা প্রদাহরোধী উপাদান। এটি প্রদাহজনক সাইটোকিন গঠন প্রক্রিয়াকে দমন করে।

মাংসেপেশির ব্যথা লাঘব করে

জিমে যাওয়ার আগে আদা খান। গবেষণায় দেখা গেছে, আদা একটি প্রাকৃতিক ব্যথা উপশমকারী ও প্রদাহরোধী উপাদান হিসেবে কাজ করে। ভারী ব্যায়াম করার পর মাংসপেশিতে যে ব্যথা সৃষ্টি হয় তা দূর করে আদা।

মাইগ্রেনের ব্যথাও দূর করে

মাইগ্রেনের ব্যাথা সবচেয়ে মারাত্মক ব্যথা। আদার রয়েছে প্রোস্টাগ্ল্যান্ডিন সংশ্লেষণ দমনের ক্ষমতা। যা রক্তের শিরা-উপশিরাগুলোকে স্ফীত হওয়া এবং চাপ সৃষ্টি করা থেকে বিরত রাখে।

স্মৃতিশক্তি সংরক্ষণ 

আদা আপনার মস্তিষ্ককে আলঝেইমার থেকে রক্ষা করবে। এই স্নায়ুক্ষয়ী রোগটি সৃষ্টি হয় মস্তিষ্কে অপ্রয়োজনীয় অ্যামিলয়েড প্রোটিন জমা হওয়ার মাধ্যমে।

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ

উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখতে আদা অত্যন্ত কার্যকর। এজন্য প্রতিদিন ৭৫ থেকে ১০০ মিলিগ্রাম আদাই যথেষ্ট।

হজমশক্তি বাড়ে

হজমের সমস্যা, বুকজ্বালা বা গ্যাস অম্বলে আদা অত্যন্ত কার্যকর।

স্বর্দি-জ্বরে

প্রতিদিন সকালে এক কাপ আদা চা খেলেই দূর হবে সর্দি, কাশি, জ্বর ও গাব্যথা। একাধিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ব্যাক্টেরিয়া ঘটিত যেকোনও সংক্রমণ ঠেকাতে আদারস খুবই কার্যকর।