• রবিবার, নভেম্বর ০১, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:১৪ রাত

জমকালো পার্টি মেক-আপ!

  • প্রকাশিত ০২:০৯ দুপুর সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০
রূপচর্চা-মেক আপ
পেক্সেলস

সুন্দর করে সেজে পার্টির মধ্যমণি হতে জানতে হবে গ্ল্যামারাস মেক-আপ লুকের আইডিয়া!

পার্টির নিমন্ত্রণে সকলের মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দু হতে হবে না? সুন্দর করে সেজে পার্টির মধ্যমণি হতে জানতে হবে গ্ল্যামারাস মেক-আপ লুকের আইডিয়া! আপনার জন্য তাই রইলো সহজ মেক-আপ ও হেয়ার স্টাইল টিপস।

পারফেক্ট বেজ

১. শুরু করুন পরিষ্কার মুখ দিয়ে। ক্লেনজিং মিল্ক দিয়ে মুখ ভালভাবে পরিষ্কার করে নিন। 

২. এবার গোলাপ জলে কটন প্যাড ডুবিয়ে আর একবার মুখে, গলায় এবং ঘাড়ে বুলিয়ে নিন। কয়েক মিনিট অপেক্ষা করে সামান্য ময়েশ্চারাইজার লাগান। ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে মিনিট দু’তিনেক অপেক্ষা করুন। 

৩. এরপর স্কিন টোনের সঙ্গে মিলিয়ে ফাউন্ডেশন লাগান। ইলিউমিনেটিং ফাউন্ডেশনও ব্যবহার করতে পারেন। ভিজে স্পঞ্জ বা ব্রাশ দিয়ে ভালভাবে মুখে, কানে, গলায়, ঘাড়ে ব্লেন্ড করে নিন। ত্বক খুব শুষ্ক লাগলে কয়েক ফোঁটা স্কিনকেয়ার অয়েল মিশিয়ে নিন ফাউন্ডেশনে। কোনও দাগ বা অ্যাকনে থাকলে সামান্য কনসিলার স্পটে লাগিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। 

৪. এবার পালা ইনার গ্লো আনার। এক শেড বা দুই শেড হাল্কা কনসিলার নিয়ে চোখের নিচে, নাকের ওপর, কপালের মাঝখানে ও থুতনিতে— অর্থাৎ, মুখে মাঝখানের অংশগুলোতে লাগিয়ে ব্লেন্ড করুন। আসলে মুখের ওপর এই অংশগুলো বাকি অংশের তুলনায় উঁচু হবার ফলে, আলো এই অংশগুলোতেই রিফ্লেক্ট করে। ফলে এখানকার ত্বক সামান্য উজ্জ্বল হলে দেখতে বেশ ভাল লাগে। তবে খুব বেশি হাল্কা শেড ব্যবহার করবেন না, তাতে পুরো ব্যাপারটাই মেকি লাগবে। 

৫. এবার লুজ পাউডার বা কমপ্যাক্ট নিয়ে হাল্কাভাবে মুখে বুলিয়ে নিন। ম্যাট লুক না চাইলে, পুরো মুখে পাউডার ব্যবহার না করে শুধু যেখানে কনসিলার লাগিয়েছেন, সেখানে ব্যবহার করলেই হবে। এরপর এক শেড বা দু’শেড গাঢ় কনসিলার ব্যবহার করে চিকবোনের ঠিক নিচের অংশ, চোয়াল ও কপালের বাইরের দিকে লাগিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। 

৬. যদি নাক শার্প দেখাতে চান, তাহলে এই সময়ই নাকের দু’পাশে সামান্য গাঢ় শেডের কনসিলার লাগিয়ে ব্লেন্ড করে নিন।

মোহময় চোখ

আই মেক-আপ কিন্তু পার্টি লুকের মেন অ্যাট্রাকশন। সবাইকে যে “কাজল নয়না হরিণী” হতে হবে এমন তো নয়। তবে মেক-আপ ঠিকঠাক হলে আপনার চোখ যেমনই হোক, চোখের পলক ফেলতে অনেকেই ভুলে যেতে পারেন! 

১. প্রথমেই আই-ব্রো শেপ করুন। খুব ডার্ক শেডের পেন্সিল ব্যবহার করবেন না। আমাদের স্কিন টোন ও হেয়ার কালার অনুযায়ী গ্রে ও ব্রাউন শেড ভাল যায়। ডোন্ট গো ওভারবোর্ড। ন্যাচারাল ব্রো-এর শেপটাই একটু নিঁখুত করুন— মাঝের ফাঁকা বা তুলনামূলকভাবে কম ঘন অংশগুলো ফিল ইন করে নিন। 

২. সামান্য কনসিলার নিয়ে চোখের পাতায় ভালভাবে ব্লেন্ড করে নিন। এতে আইশ্যাডো সুন্দর করে ফুটবে। 

৩. প্রথমে কোনও ম্যাট শেডের ব্রাউন শ্যাডো নিয়ে চোখের ক্রিজ়ে লাগান। ব্লেন্ড করতে ভুলবেন না। 

৪. পার্টিতে শিমার বা ব্রোঞ্জ কালারের শ্যাডো দেখতে বেশ ভাল লাগে। পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে শ্যাডো লাগাবেন না। বরং কনট্রাস্ট আনুন। রঙ বাছতে সমস্যা হলে নিউট্রাল শেড বেছে নিন। গোল্ডেন, সিলভার, কপার, রোজ, অলিভ, পার্পল— যেকোনও রঙের শিমারই ব্যবহার করতে পারেন। চোখের পাতার মাঝের অংশে লাগিয়ে নিন। 

৫. চোখের বাইরের কোণে একটু গাঢ় শেডের শ্যাডো লাগান। এবার আই ব্রো-এর ঠিক নিচে কোনও হাল্কা শিমার শেড লাগান। প্রতিটি কালার এমনভাবে ব্লেন্ড করুন যাতে গ্রেডিয়েশন বোঝা যায়। বাইরের কোণে যে গাঢ় শেড ব্যবহার করেছেন, সেটাই নিচের পাতার বাইরের কোণেও ব্যবহার করুন। ওপরের এবং নিচের পাতার ভেতরের কোণে কোনও হাল্কা রঙের শিমার শেড লাগান। চোখ উজ্জ্বল লাগবে। 

৬. এবার চোখের শেপ অনুযায়ী সরু কিংবা মোটা করে লাইনার টানুন। উইঙ্গড আইলাইনার এক্ষেত্রে বেস্ট। নিচের পাতায় ঘন আই পেন্সিলের রেখা দেখতে সুন্দর লাগবে। তবে কালোর বদলে ব্রাউন, অলিভ, টিল, ব্লু ট্রাই করতে পারেন। 

৭. পার্টিতে একটু জমকালো সাজতে চাইলে ফল্স ল্যাশও ব্যবহার করতে পারেন। এরপর পাতায় কয়েক পরত মাস্কারা লাগালেই চোখের মেক-আপ শেষ। 

আকর্ষণীয় ঠোঁট

১. পার্টিতে মেরুন, মভ, চকোলেট, লাল, রানি ইত্যাদি শেড ব্যবহার করতে পারেন। তবে গাঢ় লিপকালার পছন্দ না হলে ফুশিয়া পিঙ্ক, ব্রাউন, বেবি পিঙ্ক, কোরাল ইত্যাদিও ব্যবহার করতে পারেন। 

২. তবে খেয়াল রাখবেন, চোখ ও ঠোঁট দু’টোই যেন খুব বেশি লাউড না লাগে। চোখে যদি কোনও ব্রাইট কালার ব্যবহার করেন, তাহলে ঠোঁটে বেশি ব্রাইট রঙ না ব্যবহার করাই ভাল। এখন শিমার লিপস্টিকও পাওয়া যায়। পছন্দ হলে তাও ব্যবহার করতে পারেন।

স্টাইলিশ চুল 

১. খোলা চুল ব্লো ড্রাই করে তো রাখতেই পারেন। খোলা চুল সামলাতে গেলে যদি অসুবিধা হয়, তাহলে চুল বেঁধে রাখাই শ্রেয়। মেসি বান, সাইড রোল, হাফ আপডু কিংবা ফ্রেঞ্চ রোল ট্রাই করতে পারেন। 

২. মেসি বানের জন্য চুল ভাল করে ব্রাশ করে নিন। এবার একটা পনিটেল বেঁধে নিন। এবার চুলের নিচ থেকে উল্টোদিকে ব্রাশ করুন। খানিকটা করে চুল নিয়ে রোল করে কাটা বা ববি পিনের সাহায্যে সেট করে নিন। সাইড রোলের ক্ষেত্রে মেসি বানের মতোই পনিটেল করুন, তবে মাথার কোনও এক পাশে। 

৩. এবার পুরো চুল রোল করে ববি পিনের সাহায্যে আটকে নিন। হাফ আপডু করতে চাইলে কানের ওপরের অংশ অবধি চুল নিয়ে ব্রাশ করে নিন। এবার ওই অংশের চুল ওপর থেকে নিচের দিকে ব্রাশ করে পাফ করে নিন। 

৪. এবার দু’পাশে কানের ওপরের অংশ অবধি চুল পিছনে নিয়ে ববি পিন লাগিয়ে নিন। ফ্রেঞ্চ রোলের ক্ষেত্রে পুরো চুল পনিটেল বাঁধার মতো করে ধরে বাইরে থেকে ভেতরের দিকে লম্বালম্বিভাবে রোল করতে থাকুন। 

৫. পুরো চুল রোল করা হয়ে গেলে ববি পিন ও কাটার সাহায্যে সেট করে নিন। আজকাল বিভিন্ন হেয়ার অ্যাকসেসরিজও পাওয়া যায়। 

৬. টায়রা, সুন্দর হেয়ার পিন, বোহো ব্যান্ড, স্টোন ক্লিপস ইত্যাদিতে নিজের আলাদা ফ্যাশন স্টেটমেন্ট তৈরি করুন।

ব্যস, মেক-আপ আর হেয়ারস্টাইল ডান। পোশাকের সঙ্গে ম্যাচ করে জুয়েলারি, ব্যাগ ও পায়ে একজোড়া স্টিলেটো পরে নিলেই পার্টির জন্য আপনি একদম তৈরি!

50
50
blogger sharing button blogger
buffer sharing button buffer
diaspora sharing button diaspora
digg sharing button digg
douban sharing button douban
email sharing button email
evernote sharing button evernote
flipboard sharing button flipboard
pocket sharing button getpocket
github sharing button github
gmail sharing button gmail
googlebookmarks sharing button googlebookmarks
hackernews sharing button hackernews
instapaper sharing button instapaper
line sharing button line
linkedin sharing button linkedin
livejournal sharing button livejournal
mailru sharing button mailru
medium sharing button medium
meneame sharing button meneame
messenger sharing button messenger
odnoklassniki sharing button odnoklassniki
pinterest sharing button pinterest
print sharing button print
qzone sharing button qzone
reddit sharing button reddit
refind sharing button refind
renren sharing button renren
skype sharing button skype
snapchat sharing button snapchat
surfingbird sharing button surfingbird
telegram sharing button telegram
tumblr sharing button tumblr
twitter sharing button twitter
vk sharing button vk
wechat sharing button wechat
weibo sharing button weibo
whatsapp sharing button whatsapp
wordpress sharing button wordpress
xing sharing button xing
yahoomail sharing button yahoomail