Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

‘পারিবারিক সম্মানের’ জন্য বোনকে হত্যা, পাকিস্তানি যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

গ্রেফতারের পর তিনি বলেছিলেন, বোনের আচরণ অসহনীয় হয়ে ওঠায় তাকে তিনি খুন করেছেন এবং এজন্য তার কোনো অনুশোচনা নেই

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:৪৭ এএম

পরিবারের তথাকথিত সম্মান রক্ষার নামে পাকিস্তানের সোশ্যাল মিডিয়া তারকা কান্দিল বালুচকে হত্যার দায়ে তার ভাই মুহাম্মদ ওয়াসিমকে যাবজ্জীবন দিয়েছে কারাদণ্ড দেশটির আদালত৷

ওয়াসিমের আইনজীবী সরদার মাহমুদ বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন, আদালত শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) তার মক্কেলকে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে৷ তবে তার আশা, ওয়াসিম উচ্চ আদালতে খালাস পাবেন৷

কান্দিলের মা আনোয়ার মাই আশা করেছিলেন তার ছেলে খালাস পাবেন৷ তিনি বলেন, ‘‘সে নির্দোষ, সে আমার মেয়ে ছিল আর সে আমার ছেলে৷’’

২০১৬ সালের জুলাইয়ে কান্দিল বালুচকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর ওয়াসিমকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ তখন ওয়াসিম বলেছিলেন, বোনের আচরণ অসহনীয় হয়ে ওঠায় তাকে তিনি খুন করেছেন এবং এজন্য তার কোনো অনুশোচনা নেই৷

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে নিজেকে খোলামেলাভাবে প্রদর্শন করে পরিবারের সম্মানহানী ঘটনোয় কান্দিলকে মেরে ফেলাটা আবশ্যক হয়ে পড়েছিল বলে পুলিশকে জানিয়েছিলন ওয়াসিম৷

পরিবারের অমতে বিয়ে, প্রেম এমনকি ধর্মীয় অনুশাসনের বরখেলাপ করা- এমনসব ‘অপরাধে’ আপনজনদের হাতে পাকিস্তানে প্রতিবছর প্রাণ হারান অনকে নারী৷ কান্দিল বালুচও সেই ‘অনার কিলিং’-এরই শিকার হন৷

কান্দিল বালুচকে হত্যার ঘটনা নিয়ে বড় বড় শিরোনামে খবর প্রকাশিত হয়৷ হত্যাকাণ্ডের তিন মাস পর অনারার কিলিংয়ের জন্য যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রেখে পাকিস্তানের সংসদে নতুন আইন পাস করা হয়৷

কান্দিল বালুচ ২০১৪ সালে নিজের একটি ‘পাউটিং’ ভিডিও আপলোড করে রাতারাতি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোয় বিখ্যাত হয়ে ওঠেন৷ এরপর থেকে বিভিন্ন সময়ে নানাভাবে নিজেকে আবেদনময় রূপে উপস্থাপন করেন এবং সাহসী বক্তব্য দিয়ে বিতর্কের জন্ম দেন৷

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চলার সময় পাকিস্তান ভারতকে হারাতে পারলে নগ্ন হয়ে নাচার ঘোষণা দেন তিনি৷ ওই বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারতের কাছে হেরে যায় পাকিস্তান৷ তখন ইউটিউবে আরেকটি ভিডিও আপলোড করেন কান্দিল, পাকিস্তান হেরে যাওয়ায় ওই ভিডিওতে তাকে কাঁদতে দেখা গিয়েছিল৷

About

Popular Links