Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

করোনাভাইরাস: ৪১ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ১২৮৭

ফলে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বেইজিংয়ের ফরবিডেন সিটি ও গ্রেট ওয়ালের একাংশসহ দেশটির প্রধান প্রধান পর্যটন এলাকা

আপডেট : ২৫ জানুয়ারি ২০২০, ০৩:১৪ পিএম

চীনের হুবেই প্রদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ১৫ জনের প্রাণহানি হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে বর্তমানে ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২৮৭ জনে। যাদের মধ্যে অন্তত ৪১ জন মারা গেছেন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি।

দেশটির স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলোর দেওয়া তথ্যানুযায়ী, ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশটির রাজধানী বেইজিং ও সাংহাইয়ে ভাইরাস আক্রান্ত স্থান থেকে ভ্রমণ করা ব্যক্তিদের ১৪ দিন বাড়ির বাইরে বের না হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়া প্রধান প্রধান পর্যটন এলাকা যেমন বেইজিংয়ের ফরবিডেন সিটি এবং গ্রেট ওয়ালের এক অংশ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি। 

প্রসঙ্গত, চীনে নতুন চন্দ্রবর্ষ উদযাপনের একই সময়ে এ ভাইরাসটির সংক্রমণ শুরু হয়েছে। হুবেই প্রদেশেই প্রথম করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়।

ভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হলে প্রথমে তার জ্বর হয়, এরপর দেখা দেয় শুকনো কাশি এবং সপ্তাহখানেক পরে শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। এ অবস্থায় অনেককেই হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া জরুরি হয়ে পড়ে।

এদিকে চীনের মিডিয়াগুলো বলছে, নতুন এক হাজার শয্যার হাসপাতালটি ছয় দিনের মধ্যে প্রস্তুত হয়ে যাবে। এটি নির্মাণে ৩৫টি খনন যন্ত্র এবং ১০টি বুলডোজার কাজ করছে।

বিবিসি’র ওই প্রতিবেদেনে আরও বলা হয়েছে, ভাইরাসটি এখন ছড়িয়ে পড়েছে ইউরোপেও। ফ্রান্সে তিন জন আক্রান্ত হওয়ার খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। থাইল্যান্ডে এ পর্যন্ত পাঁচ জন আক্রান্ত হয়েছে; জাপান, ভিয়েতনাম এবং দক্ষিণ কোরিয়ায় দুই জন করে আক্রান্ত হয়েছে ও তাইওয়ানে একজন আক্রান্ত হয়েছে। সিঙ্গাপুর শুক্রবার তৃতীয় আরেক জন আক্রান্ত হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছে। এই ব্যক্তি আক্রান্ত এক রোগীর ছেলে বলে জানানো হয়। একইদিনে নেপালে একজন আক্রান্ত হওয়ার কথা জানা যায়।

যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডায় কেউ আক্রান্ত হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ভাইরাসটিকে এখনো "আন্তর্জাতিক জরুরি অবস্থা," বলে ঘোষণা করেনি কারণ বিশ্ব জুড়ে এখনো এতে আক্রান্তের সংখ্যা কম।

"এটি এখনো বড় হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে," বলেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক ডা. টেড্রোস আঢানম ঘেব্রেয়েসাস।

About

Popular Links