• বুধবার, নভেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৪:৪৩ বিকেল

মুক্তি স্থগিত মালয়েশিয়ার পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহিমের

  • প্রকাশিত ০৫:০২ সন্ধ্যা মে ১৫, ২০১৮
আনোয়ার ইব্রাহিম
আনোয়ার ইব্রাহিম

মুক্তি স্থগিত করা হলো মালয়েশিয়ার পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহিমের। মঙ্গলবার তার মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা জানায়, তাকে রাজকীয় ক্ষমার বিষয়টি আলোচনার জন্য বুধবার সময় নির্ধারণ করে ক্ষমা প্রশ্নে গঠিত কমিটি।  

মালয়েশিয়ার রাজা ইয়াং দি পারতুয়ান এগংয়ের কার্যালয় থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলা হয়, আনোয়ারের মুক্তি নিয়ে চলমান প্রক্রিয়ার অগ্রগতি নির্য়ৈ সন্তুষ্ট রাজা। তবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যার্লেয়র অনুরোধ ক্ষমা প্রশ্নে নির্ধারিত আলোচনা যেন বুধবার শুরু হয়।

বিরোধী জোটের নেতৃত্ব নেওয়ার সময় মাহাথির চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন, জোট ক্ষমতায় এলে তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেবেন। তবে এর দুই বছরের মধ্যে আনোয়ার ইব্রাহিমের মুক্তি নিশ্চিত করে তার কাছে সরকার প্রধানের দায়িত্ব হস্তান্তর করবেন তিনি। শপথ নিয়ে মাহাথিরও বলেছিলেন দ্রুতই  আনোয়ারর মুক্তি নিশ্চিত করবেন তিনি। শনিবার আনোয়ারের মেয়ে নুরুল ইজ্জাহ বলেছিলেন, তার বাবাকে মঙ্গলবার মুক্তি দেওয়া হবে।’ 

গত ৯ মে বুধবারের নির্বাচনে দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতায় থাকা বারিসন ন্যাসিওনাল সরকারকে হারিয়ে জয়লাভ করে চার দলের নতুন জোট।হাসপাতালের বেডে শুয়ে পাঠানো এক বিবৃতিতে আনোয়ার ইব্রাহিম তার পিপলস জাস্টিস পার্টি-পিকেআর সদস্যদের মাহাথিরের সরকারকে ‘শক্তিশালী ও স্থিতিশীল’ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।

মাহাথির ক্ষমতাসীন জোটের নেতা আর আনোয়ার জোটের মধ্যে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে জেতা দল পিকেআর’র নেতা। এই দুজন প্রথমে বন্ধু, তারপর শত্রু ও পরে জোটের মিত্র হয়েছেন। তাদের এমন পরিবর্তনশীল সম্পর্কই গত তিন দশক ধরে মালয়েশিয়ার রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করছে। এমনকি জোটের ভবিষ্যৎও এই দুইজনের সম্পর্কের ওপরই নির্ভর করছে।

রাজার কার্যালয় থেকে পাঠানো বিবৃতিতে বলা হয়, ক্ষমা প্রশ্নে অনুষ্ঠিতব্য বৈঠকটি ১৬ মে নির্ধারণ করা হয়েছে। আনোয়ারের স্ত্রী ওয়ান আজিজাহ ওয়ান ইসমাইল বর্তমানে উপ-প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বপালন করছেন। তিনি বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। 

আনোয়ার ইব্রাহিম ও মাহাথির মোহাম্মদ এক সময় ঘনিষ্ঠ মিত্র ছিলেন। কিন্তু মতপার্থক্যের জেরে ১৯৯৮ সালে উপপ্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে আনোয়ার ইব্রাহিমকে সরিয়ে দেন মাহাথির। এরপর কথিত সমকামিতার অভিযোগে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। তবে রাজনৈতিক পালাবদলের ধারাবাহিকতায় সদ্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাককে হটাতে তারা আবার মিত্রে পরিণত হন।