• শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৬ রাত

তুরস্কে জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার

  • প্রকাশিত ০৮:২৬ রাত জুলাই ১৯, ২০১৮
turkey-hits-back-at-macron-over-dictator-magazine-cover-1532010310334.jpg
প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। ছবি: রয়টার্স

দুই বছরের জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার করে নিয়েছে তুরস্ক সরকার। ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের জের ধরে এতোদিন দেশটিতে এই জরুরি অবস্থা জারি ছিল।

দুই বছরের জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার করে নিয়েছে তুরস্ক সরকার। ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের জের ধরে এতোদিন দেশটিতে এই জরুরি অবস্থা জারি ছিল এবং প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর জরুরি অবস্থার মেয়াদ বাড়ানো হচ্ছিল। এ সময়ের মধ্যে লাখো মানুষকে গ্রেফতার অথবা চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

সম্প্রতি তুরস্কের নির্বাচেনে জয়লাভ করেছে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। তারপরই জরুরি অবস্থা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হল। অবশ্য নির্বাচনী প্রচারাভিযানের সময় বিরোধী পক্ষের প্রার্থীরা অঙ্গীকার করেছিলেন, ক্ষমতায় যেতে পারলে, প্রথমেই জরুরি অবস্থার ইতি টানবেন তারা। 

দেশটিতে জরুরি অবস্থা চলাকালীন চাকরি হারিয়েছেন এক লাখ সাত হাজারের বেশি সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী। এ ছাড়াও সরকারি ও বেসরকারি হিসেবে ৫০ হাজার মানুষকে কারাবন্দি করা হয়েছে। চাকরিচ্যুত ও কারাবন্দি অনেকেই দেশটির নির্বাসিত ইসলামিক নেতা ফেতুল্লাহ গুলেনের সমর্থক। যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী গুলেন, একসময় এরদোয়ানের মিত্র ছিলেন।

তুরস্ক সরকারের অভিযোগ, সেনা অভ্যুত্থানের চেষ্টা করেছেন গুলেন। তবে, বরাবরই অভ্যুত্থানের বিষয়টি অস্বীকার করে আসছেন তিনি। ২০১৬ সালের ওই সেনা অভ্যুত্থানের চেষ্টার সময় সামরিক বিমান থেকে পার্লামেন্ট ভবনে বোমা হামলা চালানো হয়। এতে, ২৫০ জনেরও বেশি নিহত হন।