• বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:১৫ রাত

প্রকাশ্যে ভোট দিয়ে বিপাকে ইমরান খান

  • প্রকাশিত ১০:৪৪ সকাল জুলাই ২৬, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট ১০:৫৩ সকাল জুলাই ২৬, ২০১৮
Imran khan
পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ পার্টির সভাপতি ও নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান (ফাইল ছবি)। ছবি: রয়টার্স

গতকাল ২৫ জুলাই জাতীয় নির্বাচনে পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ পার্টির সভাপতি ইমরান খানের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে ভোট প্রদর্শনের অভিযোগ উঠেছে। ভোট দানের সময় ব্যালট পেপার টবিলের উপর রেখে সকলের সামনেই সিল মারেন তিনি।

গতকাল ২৫ জুলাই জাতীয় নির্বাচনে পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ পার্টির সভাপতি ইমরান খানের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে ভোট প্রদর্শনের অভিযোগ উঠেছে। ভোট দানের সময় ব্যালট পেপার টবিলের উপর রেখে সকলের সামনেই সিল মারেন তিনি। 

আগামী ৩০ জুলাই এই নীতি বহিঃর্ভুত কাজের শুনানি জানতে ইমরানকে নোটিশ পাঠিয়েছে দেশটির নির্বাচন কমিশন। বুধবারেই ইমরান খানের বিতর্কিত ভোটদানের বিষয়টি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের কাছে সিদ্ধান্তের জন্য পাঠানো হয়েছিল। 

পাকিস্তানভিত্তিক জিওটিভি জানিয়েছে, পাকিস্তানের নির্বাচনি আইনের ১৮৫ ধারা অনুযায়ী গোপনে ভোট প্রদান সম্পন্ন না করলে অভিযুক্ত ব্যক্তির সর্বোচ্চ ছয় মাসের কারাদণ্ড ও এক হাজার রুপি জরিমানা শাস্তির বিধান রয়েছে।

২৫ জুলাই অনুষ্ঠিত হয়েছে পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচন। একইসাথে দেশটির প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচনও অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ব্যক্তিগত ভোট প্রদানের সময় সাবেক এই ক্রিকেটার দেশটির গণমাধ্যমের সামনেই ব্যালট পেপারে ভোট দেন যা পাকিস্তানের নির্বাচনি আইন অনুযায়ী বেআইনি। ঘটনাটি প্রকাশ হবার পর নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ করা হয়েছে।

ভোট দেওয়ার ভিডিও প্রকাশ্যে আসায় ইমরানের কোনও দোষ দেখছেন না পিটিআইয়ের মুখপাত্র ফয়সাল জাভেদ। ইমরান খানের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের প্রতিবাদে বলেছেন, তাকে ঘিরে সংবাদ কর্মীরা দাঁড়িয়েছিলেন। তারা ভিডিও গ্রহণ করেছেন। গোপনীয়তা রক্ষার জন্য ভোটকেন্দ্রের কর্মকর্তারই ব্যবস্থা নেওয়া উচিত ছিল।

তবে প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা গেছে, ইমরান খান নির্ধারিত বুথে না প্রবেশ করে নির্বাচন কর্মকর্তার টেবিলে ব্যালট পেপার রেখে তাতে সিল দেন।