• শনিবার, অক্টোবর ২০, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৩:৩৩ বিকেল

যৌন নিপীড়নের ঘটনায় জড়িত আর্চবিশপের কারাদণ্ড

  • প্রকাশিত ০৬:৪২ সকাল আগস্ট ১, ২০১৮
archbishop
আর্চবিশপ ফিলিপ উইলসন। ছবি: বিবিসি

১৯৭০ সালে এক শিশু যৌন নিপীড়ন ঘটনার জন্য তাকে শাস্তি দেওয়া হয়। আর্চবিশপ ফিলিপ উইলসনের বিরুদ্ধে অভিযোগ, জানার পরেও ওই ঘটনাটি লুকিয়ে রাখার চেষ্টা করেছিলেন তিনি।

শিশু যৌন নিপীড়নের ঘটনা গোপন করার অভিযোগে অস্ট্রেলিয়ায় এক ক্যাথলিক আর্চবিশপকে ১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত। মঙ্গলবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনের বরাতে এই তথ্য জানা গেছে।

বিবিসি জানিয়েছে, অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডেলেডের আর্চবিশপ ফিলিপ উইলসন এই অভিযোগে দণ্ডিত সবচেয়ে বর্ষীয়ান ক্যাথলিক ধর্মগুরু। চলতি বছরের জুনে নিউ সাউথ ওয়েলসের এক আদালতে তাকে দোষী সাব্যস্ত করে রায় দিয়েছে।

১৯৭০ সালে এক শিশু যৌন নিপীড়ন ঘটনার জন্য তাকে শাস্তি দেওয়া হয়। আর্চবিশপ ফিলিপ উইলসনের বিরুদ্ধে অভিযোগ, জানার পরেও ওই ঘটনাটি লুকিয়ে রাখার চেষ্টা করেছিলেন তিনি।  চলতি বছরের মে মাসে আদালতে প্রমাণিত হয়, সহকর্মী জেমস প্যাট্রিক ফ্লেচারের যৌন নিপীড়নের ঘটনা জানলেও এর বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেননি তিনি। ফিলিপ সে সময় একজন জুনিয়র প্রিস্ট ছিলেন। গির্জার সম্মান নষ্ট হবে ভেবে নিপীড়নের শিকার শিশুটির পাশে দাঁড়াননি তিনি।

তবে ২০০৪ সালে জেমস ফ্লেচারের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ প্রমাণিত হয় এবং তার কারাদণ্ড হয়। এর দুই বছর পর কারাগারেই মারা যান তিনি। অবশ্য নিজের বিরুদ্ধে সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ফিলিপ। এদিকে তার আইনজীবী জানিয়েছেন, ৬৭ বছর বয়সী এই আর্চবিশপ আলঝেইমার রোগে ভুগছেন।

এদিকে ওই ঘটনার শিকার অলটারবয় পিটার ক্রেইগ আদালতকে জানিয়েছেন, নিপীড়িত হওয়ার পাঁচ বছর পর ১৯৭৬ সালে তিনি নিজেই ওই ঘটনা ফিলিপকে জানিয়েছিলেন। তবে ফিলিপ ওই কথোপকথনের কিছুই মনে নেই বলে আদালতকে জানান। ফিলিপের এই দাবি নাকচ করে দিয়েছেন ম্যাজিস্ট্রেট স্টোন। তিনি পিটার ক্রেইগের বক্তব্যকে বিশ্বাস করেন। তবে কারাগারে দণ্ড ভোগ করতে হবে না এই ক্যাথলিক ধর্মগুরুকে। আদালত রায়ে বলেছেন, বাড়িতে থেকেই কারাবাসের শাস্তি ভোগ করবেন তিনি।