• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:২৮ সকাল

করমর্দন না করায় সুইস নাগরিকত্ব পেলেন না মুসলিম দম্পতি

  • প্রকাশিত ০২:০৭ দুপুর আগস্ট ১৯, ২০১৮
Muslim couple denied Swiss citizenship over handshake refusal
ছবি: গার্ডিয়ান

বিপরীত লিঙ্গের মানুষের সঙ্গে করমর্দন করতে অস্বীকার করায় সুইজারল্যান্ডে এক মুসলিম দম্পতির নাগরিকত্বের আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে।

সুইজারল্যান্ডে অভিবাসন কর্মকর্তাদের সঙ্গে করমর্দন করতে অস্বীকৃতি জানানোয় সুইজারল্যান্ডে এক মুসলিম দম্পতির নাগরিকত্বের আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। 

দেশটির লুজিনের পৌরসভা কর্তৃপক্ষ জানায়, লিঙ্গ সমতার প্রতি সম্মান প্রদর্শনের ক্ষেত্রে অনীহা থাকায় তাদের নাগরিকত্ব দেয়া হয়নি। এমন খবর প্রকাশ করেছে দ্যা গার্ডিয়ান।

লুসান পৌর মেয়র গ্রেগোয়ার জুনোদ জানান, লিঙ্গ সমতার ব্যাপারে দম্পতির কোনো শ্রদ্ধা নেই। এজন্য তাঁরা যে নাগরিকত্ব আবেদন করেছেন তা মঞ্জুর করা হয়নি।

মেয়র জানান, তারা নাগরিকত্ব পাওয়ার বৈশিষ্ট্য ধারন করেন কিনা তা জানতে কয়েক মাস আগে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ তাদের সাক্ষাৎকার নিয়েছিল। কিন্তু এ দম্পতি এখনো সততার সীমায় পৌঁছাতে পারেননি। শুক্রবার জানানো হয় তারা নাগরিকত্ব শর্ত পূরণ করেনি। তাই তাদের নাগরিকত্বের আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে।

মুসলিম দম্পতির পরিচয় খোলাসা করেননি লুসান পৌর মেয়র। মেয়র জানান, তারা বিপরীত লিঙ্গের মানুষের সঙ্গে করমর্দন করেননি। বিপরীত লিঙ্গের মানুষের প্রশ্নের উত্তর দিতেও অত্যন্ত সমস্যা হয় তাঁদের। 

আইনেই বিশ্বাস ও ধর্মের স্বাধীনতা সম্পর্কে বলা হয়েছে। ধর্মচর্চাও এর বাইরে না এমনটাই জানান মেয়র জুনোদ। 

দম্পতির কাছে তাদের ধর্মের বিষয়ে কিছু জানতে চাওয়া হয়নি বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন। তবে তাদের দাবি, ধর্মের কারণে তাদের নাগরিকত্বের আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হয়নি। সেটা করা হয়েছে লিঙ্গ সমতায় তাদের বিশ্বাসের অভাবের কারণে।

সুইজারল্যান্ডে করমর্দন নিয়ে বিতর্ক এবারই প্রথম নয়। এর আগে ২০১৬ সালে একটি সুইস স্কুলের নারী শিক্ষকের সঙ্গে অপ্রাপ্তবয়স্ক মুসলিম দুই ভাই হাত মেলাতে রাজি না হওয়ায় পুরো পরিবারটির অভিবাসন প্রক্রিয়া স্থগিত করা হয় যা তখন বিতর্ক তৈরি করেছিল। 

সূত্র:দ্যা গার্ডিয়ান।