• মঙ্গলবার, অক্টোবর ২২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৮:২০ রাত

মায়েদের বিক্ষোভে পুলিশের হানা

  • প্রকাশিত ০৫:০৮ সন্ধ্যা আগস্ট ২৬, ২০১৮
protest
বিক্ষোভ থেকে আটক করা হয়েছে ৮০ বছর বয়স্ক বর্ষীয়ান নারী এমিনি ওকাকসহ প্রায় ৫৯ জনকে। ছবি: এএফপি

“বিষয়টি লজ্জাজনক। রাষ্ট্রীয় অপরাধের বিরুদ্ধে ন্যায়বিচার চাওয়া পরিবারগুলোর প্রতি নৃশংস আচরণ।”

নিখোঁজ স্বজনদের স্মরণে ইস্তানবুল শহরে মায়েদের আয়োজিত একটি নিয়মিত বিক্ষোভ কর্মসূচি টিয়ারগ্যাস ছুড়েছে তুরস্ক পুলিশ। ১৯৯০-এর দশকে সহিংসতায় নিখোঁজদের স্মরণে আয়োজিত হয় এই বিক্ষোভ। আর এই বিক্ষোভ থেকেই আটক করা হয়েছে ৮০ বছর বয়স্ক বর্ষীয়ান নারী এমিনি ওকাকসহ প্রায় ৫৯ জনকে। 

সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ১৯৯৫ সাল থেকে ‘স্যাটারডে মাদার্স’ নামের গ্রুপটি নিয়মিত বিক্ষোভ করে আসছে। শনিবার ৭০০তম বিক্ষোভের দিন ছিল তাদের।

ইতোমধ্যেই শনিবার চলমান বিক্ষোভে পুলিশি তৎপরতার নিন্দা জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলো। এ প্রসঙ্গে হিউম্যান রাইটস ওয়াচের এমমা সিনক্লেয়ার বলেন, “বিষয়টি লজ্জাজনক। রাষ্ট্রীয় অপরাধের বিরুদ্ধে ন্যায়বিচার চাওয়া পরিবারগুলোর প্রতি নৃশংস আচরণ।”

এদিকে, এ প্রসঙ্গে স্থানীয় সরকার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, “অবস্থান ধর্মঘটটি নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। কারণ কুর্দিস্তান ওয়ার্কাস পার্টি (পিকেকে) সংশ্লিষ্ট সোস্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট থেকে ওই বিক্ষোভ নিয়ে প্রচারণা চালানো হয়েছে।”

১৯৮৪ সালে তুরস্ক সরকারের বিরুদ্ধে স্বশস্ত্র লড়াই শুরু করে পিকেকে। তুরস্ক ও সিরিয়ার বিস্তৃত অঞ্চল নিয়ে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার দাবিতে তুরস্কের বিরুদ্ধে লড়াই করছে তারা। ওই লড়াই শুরুর পর হাজার হাজার মানুষ প্রাণ হারায়। পিকেকে-কে তুরস্ক সরকার সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করে।

১৯৯৫ সালে ওকাকের সন্তান তুরস্ক সরকারের কাছে আটক হন। পরবর্তীতে পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তি দেওয়ার পর থেকেই নিখোঁজ হয়ে যান তিনি এমন তথ্যই জানিয়েছেন তুরস্কের আইনজীবী ইফকার বোলাক। 

উল্লেখ্য, স্যাটারডে মাদারস নামে সংগঠিত এসব মায়েরা আর্জেন্টিনার একদল মায়েদের অনুপ্রেরণায় নিয়মিত বিক্ষোভ আয়োজন করে থাকেন। আর্জেন্টিনার সামরিক স্বৈরতন্ত্রের সময় নিখোঁজ সন্তানদের খুঁজে পেতে এসব মায়েরা বিক্ষোভ শুরু করেছিলেন।