• বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:১৫ রাত

সাইবার হামলার শিকার ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ, প্রায় চার লাখ গ্রাহকের তথ্য চুরি

  • প্রকাশিত ০৮:৪৮ রাত সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৮
british airways
ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ। ছবি- রয়টার্স

এ ঘটনায় গ্রাহকদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান অ্যালেক্স ক্রুজ।

সাইবার হামলায় ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের ওয়েবসাইটে রক্ষিত প্রায় তিন লাখ ৮০ হাজার গ্রাহকের তথ্য চুরি হয়ে গেছে। হ্যাকিংয়ের শিকার হওয়ার কথা জানিয়ে অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা নিশ্চিতে গ্রাহকদের দ্রুত ব্যাংকের সঙ্গে যোগাযোগ করার পরামর্শ দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ওয়েবসাইট ও মোবাইল ফোনের অ্যাপ, দুইটিই সাইবার হামলার শিকার হয়েছে।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ইন্ডিপেন্ডেন্ট জানিয়েছে, ফ্লাইটের টিকেট বুকিং দেওয়ার জন্য গত ২১ আগস্ট থেকে ৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে যেসব গ্রাহক ক্রেডিট কার্ডের তথ্য দিয়েছেন তাদের তথ্যই চুরি করেছে হ্যাকাররা।

গ্রাহকদের নাম, ঠিকানা, ইমেল অ্যাড্রেস, ক্রেডিট কার্ডের নম্বর, কার্ডের মেয়াদের তথ্য ও কার্ডের গোপন নম্বর চুরি হয়ে গেলেও প্রতিষ্ঠানটি দাবি করেছে, যাতায়াতের বিবরণ ও টিকিট বুকিংয়ের তথ্য বেহাত হয়নি। এখন সব কার্যক্রম স্বাভাবিকভাবে চলছে। তবে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, সংশ্লিষ্ট গ্রাহকদের হিসাব থেকে অর্থ চুরি করতে এসব তথ্যই যথেষ্ট।

ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের একজন মুখপাত্র বলেছেন, ‘তৃতীয় একটি পক্ষের কাছে তথ্য পেয়ে আমরা এ বিষয়ে অনুসন্ধান শুরু করি। তারা অস্বাভাবিকতা লক্ষ্য করে আমাদের জানিয়েছিল। ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। তবে আমারা গ্রাহকদের আহ্বান জানাচ্ছি, তারা যেন তাদের ব্যাংক ও কার্ড ইস্যুকারী সংস্থার সঙ্গে সঙ্গে দ্রুত যোগাযোগ করেন।’ এ ঘটনায় গ্রাহকদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান অ্যালেক্স ক্রুজ।

ইন্ডিপেন্ডেন্ট লিখেছে, এ ঘটনার কারণে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের সুনামের ওপর বড় আঘাত আসবে। সবাই ধরে নেবে, এমন একটি সংস্থার তথ্যপ্রযুক্তির ক্ষেত্রে যথাযথ সক্ষমতা নেই। এছাড়া সংস্থাটিকে অনেক বড় অঙ্কের জরিমানার মুখে পড়তে হতে পারে। এবার যে সংখ্যক গ্রাহক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন, ২০১৫ সালে ব্রিটেনের টেলিকমিউনিকেশন প্রতিষ্ঠান টকটক হ্যাক হওয়্যার সময় এর অর্ধেক গ্রাহক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিলেন। গ্রাহকের তথ্য সুরক্ষিত রাখতে না পারায় টকটককে তখন চার লাখ পাউন্ড জরিমানা করা হয়েছিল।