• বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৯ সকাল

সিরিয়ায় দুই বাহিনীর যুদ্ধে নিহত ১৮

  • প্রকাশিত ০৪:১৫ বিকেল সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮
সিরিয়া যুদ্ধ
সিরীয় সৈন্যদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থিত কুর্দি যোদ্ধাদের সংঘর্ষে ১৮ জন নিহত হয়েছেন বলে কুর্দি বাহিনীগুলোর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত।

গত শনিবার সিরীয় সামরিক বাহিনীর একটি বহর কুর্দি অধ্যুষিত কামিশলি শহরের কেন্দ্রস্থলে প্রবেশের পর দুই পক্ষের মধ্যে লড়াই শুরু হয়ে যায়।

সিরীয় সৈন্যদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থিত কুর্দি যোদ্ধাদের সংঘর্ষে ১৮ জন নিহত হয়েছেন বলে কুর্দি বাহিনীগুলোর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। নিহতদের ৭ জন কুর্দি বাহিনীর সদস্য এবং ১১ জন সিরীয় সামরিক বাহিনীর সদস্য বলে জানা গেছে। 

রয়টার্সের খবরে বলা হয়, গত শনিবার সিরীয় সামরিক বাহিনীর একটি বহর কুর্দি অধ্যুষিত কামিশলি শহরের কেন্দ্রস্থলে প্রবেশের পর দুই পক্ষের মধ্যে লড়াই শুরু হয়ে যায়।

কুর্দিবাহিনীর পক্ষ থেকে ঐ এলাকা কুর্দিদের ওয়াইপিজি মিলিশিয়া বাহিনীর অন্তর্ভুক্ত নিরাপত্তা বাহিনীর দখলাধীন ছিল বলে দাবী করা হয়েছে। এই বাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, তারা আমাদের নিয়ন্ত্রিত এলাকায় প্রবেশ করে বেসামরিকদের গ্রেপ্তার করে এবং তাদের টহল দলের সদস্যরা আমাদের বাহিনীকে লক্ষ্য করে হামলা চালায়।

যদিও সিরীয় বাহিনীর পক্ষ থেকে কুর্দিদের এই বিবৃতি অস্বীকার করা হয়েছে। তারা বিমানবন্দরের দিকে যাওয়ার সময় সেনাবাহিনীর একটি টহল দলের ওপর কুর্দি বাহিনী হামলা করে বলে রাষ্ট্রীয় গনমাধ্যমগুলোকে জানিয়েছে। 

উল্লেখ্য কামিশলি শহরের অধিকাংশ কুর্দিদের অধীনে থাকলেও বিমানবন্দরসহ বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ এলাকা সম্প্রতি দখলে নিয়েছে সিরীয় বাহিনী। 

এদিকে, শহরটির বাসিন্দারা জানিয়েছেনতুরস্ক সীমান্তের নিকটবর্তী এই শহরটিতে মাঝেমধ্যে শুরু হওয়া লড়াইয়ে দুইপক্ষের মধ্যে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান বিঘ্নিত হচ্ছে। তারা কোনভাবেই শান্তিপূর্ণ অবস্থানের পরিবর্তন চান না। 

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ওয়াইপিজির জ্যেষ্ঠ সদস্যরা সিরিয়ায় তাদের নিয়ন্ত্রিত এলাকাগুলোর স্বায়ত্তশাসন ধরে রাখতে সিরীয় কর্মকর্তাদের সঙ্গে বেশ কয়েকটি বৈঠক করেছেন। তারই ভিত্তিতে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের কথা বলা হচ্ছে।