• বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৯ সকাল

যুক্তরাষ্ট্রে আছড়ে পড়েছে ফ্লোরেন্স

  • প্রকাশিত ০৮:১৮ রাত সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮
যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলাইনা অঙ্গরাজ্যের উপকূলে আছড়ে পড়েছে হ্যারিকেন ফ্লোরেন্স।
যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলাইনা অঙ্গরাজ্যের উপকূলে আছড়ে পড়েছে হ্যারিকেন ফ্লোরেন্স। ছবি : গেটি ইমেজ

 ঘূর্ণিঝড়টি গতি ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলাইনা অঙ্গরাজ্যের উপকূলে আছড়ে পড়েছে হ্যারিকেন ফ্লোরেন্স। ঘূর্ণিঝড়টির কেন্দ্রস্থল বর্তমানে রাজ্যের রাইটসভিল সমুদ্রসৈকতে রয়েছে। সেটির গতি ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়, ফ্লোরেন্সে গতিপথে কিছুটা শক্তি হারিয়েছে। তবে সেটির এখনো ব্যাপক ক্ষতি করতে পারে।   

নর্থ ক্যারোলাইনার গভর্নর রয় কুপার এই ঘুর্ণিঝড় থেকে নিরাপদে থাকতে অঙ্গরাজ্যের বাসিন্দাদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন। 

যুক্তরাষ্ট্রের আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, ফ্লোরেন্সের ফলে নর্থ ক্যারোলাইনায় দুই-তিন দিনেই আট মাসের সমান বৃষ্টিপাত হবে। শক্তি হারালেও ফ্লোরেন্স যথেষ্ট ক্ষতি করতে পারে। নদী ও নিন্ম এলাকার বাসিন্দারা সবচেয়ে ঝুঁকিতে রয়েছে। 

এদিকে ফ্লোরেন্সের আঘাতে নর্থ ক্যারোলাইনায় বন্যা দেখা দিয়েছে। মাত্র কয়েক ঘন্টায় হয়েছে এক ফুট বৃষ্টিপাত। এ ছাড়া সমুদ্রের পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে উপকূলবর্তী অঞ্চলগুলো প্লাবিত হয়েছে। 

ঘুর্ণিঝড় মোকাবিলায় প্রস্তুতি নিতে ক্যারোলাইনা ও ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যের ১০ লাখের বেশি মানুষকে উপকূল থেকে নিরাপদে সরে যেতে বলেছে স্থানীয় প্রশাসন। এরই মধ্যে ১২ হাজার মানুষ বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছে। 

বিবিসি আরও জানায়, ফ্লোরেন্স আঘাত হানার আগেই ১০ লাখের বেশি মানুষ বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে। এই সংখ্যা বেড়ে ৩০ লাখে দাঁড়াবে বলে আশঙ্কা করছে বিদ্যুৎ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলো। এই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে কয়েকদিন থেকে কয়েক সপ্তাহ লেগে যেতে পারে বলে জানিয়েছে তারা। 

মার্কিন আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রাতে আঘাত হেনে শনিবারে ঝড়টি ধীরে ধীরে শক্তি হারিয়ে ফেলবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।