• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:০৭ রাত

ঘূর্ণিঝড় মাংখুটের গ্রাস কেড়ে নিল ২৮ প্রাণ

  • প্রকাশিত ০৩:০৩ বিকেল সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৮
ঘূর্ণিঝড় মাংখুটের তাণ্ডব
ঘূর্ণিঝড় মাংখুটের আঘাতে ফিলিপাইনের উত্তরাঞ্চলে অন্তত ২৮জন নিহত হয়েছে। ছবি : রয়টার্স।

ভয়াবহ ঝড় ও বৃষ্টির কারণে হাজারো বাড়িঘর তছনছ হয়ে যাওয়ায় প্রায় পাঁচ লাখ মানুষ উদ্বাস্তু হয়ে পড়েছেন। 

ঘূর্ণিঝড় মাংখুটের আঘাতে ফিলিপাইনের উত্তরাঞ্চলে অন্তত ২৮জন নিহত হয়েছে। এছাড়াও, আরো অনেকে নিখোঁজ রয়েছে বলে ইউএনবির একটি খবরে বলা হয়েছে। ভয়াবহ এই ঘূর্নিঝড়ে নিহতের সংখ্যা আরো বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। 

এই ঘূর্ণিঝড়কে বছরের সবচেয়ে ভয়াবহ উল্লেখ করে পুলিশ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়ের কারণে সৃষ্ট ভূমিধসে এবং পানিতে ডুবে করডিলেকা পর্বতের আশেপাশের এলাকার ২০ জন নিহত হয়েছে।

এছাড়াও পার্শ্ববর্তী নুয়েভা ভিজকায়া প্রদেশে চারজন এবং কাগায়ান প্রদেশের আরো তিনজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে বলে পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে। এদিকে, ঘূর্ণিঝড়ের কারণে চীনের দক্ষিণাঞ্চল এবং হংকং শহরে রেড এলার্ট জারি করেছে কর্তৃপক্ষ। 

উল্লেখ্য, ভয়াবহ ঝড় ও বৃষ্টির কারণে হাজারো বাড়িঘর তছনছ হয়ে যাওয়ায় প্রায় পাঁচ লাখ মানুষ উদ্বাস্তু হয়ে পড়েছেন।

ঘূর্ণিঝড় মাংখুটের তাণ্ডবে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে হাজারো ঘরবাড়ি। ছবি: রয়টার্স। 

ঝড়ের সাথে প্রচণ্ড বৃষ্টির কারণে সৃষ্টি হয়েছে বন্যা ও ভূমিধসের। একারণে প্রায় ৮৭ হাজার মানুষকে ফিলিপাইনের উচ্চঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে কর্তৃপক্ষের বরাতে ইউএনবির খবরটিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এদিকে, রবিবার সকালে ঘূর্ণিঝড়টি ঘণ্টায় ১৫৫ কিলোমিটার (৯৬ মাইল) বেগে প্রবাহিত হচ্ছে বলে দেশটির আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়েছে। এই কারণে ফিলিপাইনের কয়েকশফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে।

মাংখুট কিছুটা দুর্বল হয়ে পড়লেও এর প্রভাবে তীব্র বৃষ্টিপাত হচ্ছে বলে হংকং এর পর্যবেক্ষকরা জানিয়েছেন। 

উল্লেখ্য, তীব্র এই বৃষ্টিপাতের কারণে ভূমিধস ও বন্যার বিস্তৃতি আরও বাড়ার আশঙ্কা করছে কর্তৃপক্ষ।