• শুক্রবার, অক্টোবর ১৯, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:২৩ রাত

ফিলিপাইনের পর হংকং ও চীনে ‘মাংখুট’ তাণ্ডব

  • প্রকাশিত ০৮:৩৭ রাত সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৮
Mankhut
ফিলিপাইনের পর হংকং ও চীনে ‘মাংখুট’ তাণ্ডব। ছবি: সংগৃহীত

টাইফুন মাংখুটের কারণে ১৩ হাজার ৩০০ হেক্টর কৃষিখামারের ফসল ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

ফিলিপাইনের উত্তরাঞ্চলে তাণ্ডবের পর টাইফুন মাংখুট এবার হংকং ও ম্যাকাওয়ের মধ্য দিয়ে এগিয়ে চীনের মূল ভূখণ্ডে আঘাত হেনেছে। এ ঝড়ে এখন পর্যন্ত চীনের গুয়াংডং প্রদেশে ৪ জন নিহত হওয়ার খবর জানিয়েছে দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাতে জানা গেছে, রবিবার টাইফুনের পূর্বাভাসের পরপরই চীনের গুয়াংডং প্রদেশ ও হাইনান দ্বীপ থেকে প্রায় ২৫ লাখ লোককে সরিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু হয়েছিল।

মাংখুটের তাণ্ডবে হংকংয়ের বেশ কয়েকটি উঁচু ভবনের জানালার কাঁচ ভেঙে যাওয়ার পাশাপাশি গাছপালা উপড়ে পড়েছে। রবিবার বিমান চলাচল বন্ধ থাকার পাশাপাশি অনেক গণপরিবহনও টাইফুনের জন্য বন্ধ ছিল। এ ছাড়াও ঝড়ে দুইশ’র বেশি মানুষ আহতও হয়েছেন বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

ঝড়টি এখন চীনের আরো ভেতরের অঞ্চলগুলোর দিকে অগ্রসর হচ্ছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোর মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী এ টাইফুনের মোকাবেলার পর সোমবার লণ্ডভণ্ড হংকংয়ের রাস্তাগুলো পরিষ্কারের কাজ শুরু হয়। আর শহরটির অর্থ বাজার ও অন্যান্য দফতরগুলোতেও স্বাভাবিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

টাইফুন মাংখুটের কারণে ১৩ হাজার ৩০০ হেক্টর কৃষিখামারের ফসল ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বলেও জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমটি। চীনের আবহাওয়া প্রশাসন টাইফুনটিকে ‘ঝড়ের রাজা’ আখ্যা দিয়ে স্থানীয় সময় ভোর ৬টায় এটি পশ্চিম দিকে গুয়াংশি অঞ্চলের দিকে এগিয়ে গিয়ে দুর্বল হয়ে ‘ক্রান্তীয় ঝড়ে’ পরিণত হয়েছে বলে জানিয়েছে।

আবহাওয়া প্রশাসন জানায়, ১৯৪৯ সালে রেকর্ড রাখা শুরুর পর থেকে দক্ষিণপূর্ব চীনে আঘাত হানা সবচেয়ে শক্তিশালী ১০টি টাইফুনের অন্যতম মাংখুট, যেটি ঘন্টায় প্রায় ১৬২ কিলোমিটার বাতাসের বেগ নিয়ে ওই অঞ্চলে আঘাত হেনেছে।