• সোমবার, মার্চ ৩০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৩ দুপুর

জাতিসংঘ অধিবেশনে মার্কিন প্রেসিডেন্টের ‘ইরান সমালোচনা’

  • প্রকাশিত ১০:৫৯ রাত সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮
Trump UN Speech
জাতিসংঘের ৭৩তম সাধারণ অধিবেশনে নিজ বক্তব্য রাখছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ছবি: রয়টার্স

পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ ও মিসাইল পরীক্ষায় ইতি টানায় উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উন-এর প্রশংসা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

মঙ্গলবার জাতিসংঘের ৭৩তম সাধারণ অধিবেশনে নিজ বক্তব্যে ইরানের সমালোচনা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। নিজ বক্তব্যে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইরানকে ‘দুর্নীতিপরায়ণ একনায়কতন্ত্র’ আখ্যা দিয়ে বলেন, “ইরানিয়ান নেতারা বিশৃঙ্খলতা, মৃত্যু এবং ধ্বংসের বীজ বপন করছেন। প্রতিবেশী রাষ্ট্রের প্রতি, সীমান্তের প্রতি এবং রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্বের প্রতি তাদের কোনও সম্মান নেই।”

নিজ বক্তব্যে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ ও মিসাইল পরীক্ষায় ইতি টানায় উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উন-এর প্রশংসাও করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। নিজ বক্তব্যে ট্রাম্প আরও জানান, প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার মূল লক্ষ্য হচ্ছে আমেরিকার সার্বভৌমত্ব রক্ষা করা, আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের সংস্কার সাধন করা। এ সময় তিনি ‘অর্গানাইজেশন অব পেট্রোলিয়াম এক্সপোর্টিং কান্ট্রিস’-এর প্রতি তেলের মূল্য বৃদ্ধি না করার আহবান জানান।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার বক্তব্যে চীনের বাণিজ্য পদ্ধতির সমালোচনা করেন এবং নিজেকে ইতিহাসের অন্যতম সাফল্য অর্জনকারী প্রেসিডেন্টদের একজন বলে দাবি করেন। এই কথায় উপস্থিত বিশ্বনেতা ও কূটনীতিকদের মধ্য থেকে হাসির আওয়াজ পেয়ে ট্রাম্প মন্তব্য করেন, “আমি এমন প্রতিক্রিয়া আশা করিনি, কিন্তু ঠিক আছে।”

তবে ট্রাম্পের মূল বক্তব্য ছিল ইরান কেন্দ্রিক। জাতিসংঘ অধিবেশনে বক্তব্য রাখার আগে ট্রাম্প সাংবাদিকদের জানান, ইরানিয়ানদের সঙ্গে দেখা করবেন না যতোদিন না তারা নিজেদের নীতিতে পরিবর্তন আনছেন। উল্লেখ্য, ট্রাম্প এবং রুহানি দুজনেই জাতিসংঘের বার্ষিক এই অধিবেশনে অংশ নিয়েছেন।

ট্রাম্প সাংবাদিকদের ইরান প্রসঙ্গে বলেন, “ইরান খুবই বাজে আচরণ করেছে। আমরা ইরানের সঙ্গে সুসম্পর্ক চাই, তবে তা এখন আর হচ্ছে না।” এ ছাড়াও তিনি এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, “অনুরোধ পাওয়া স্বত্ত্বেও, আমার ইরানিয়ান প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে আলোচনায় বসার কোনও পরিকল্পনা নেই। হয়তো ভবিষ্যতে আলোচনা হতে পারে। আমি নিশ্চিত, তিনি একজন যোগ্য মানুষ।”

অথচ ইরানের জাতিসংঘ মিশনের মুখপাত্র আলিরেজা মিরইউসুফি বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, ইরান এখন পর্যন্ত ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠকের কোনও অনুরোধ জানায়নি।