• বৃহস্পতিবার, জুন ২৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩০ রাত

পোল্যান্ডে খেলার সময় অগ্নিকাণ্ডে ৫ কিশোরীর মৃত্যু

  • প্রকাশিত ১১:১১ সকাল জানুয়ারী ৬, ২০১৯
পোল্যান্ড-দমকল বাহিনী
অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাস্থলে পোলিশ দমকল বাহিনীর একটি ফায়ার ইঞ্জিন। ছবি: এপি।

অগ্নিকাণ্ডের সময় খেলার নিয়মানুযায়ী ঘরের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ থাকায় কিশোরীদের উদ্ধার করা যায়নি

পোল্যান্ডে জন্মদিন পালনের সময় অগ্নিকাণ্ডে অন্তত পাঁচ কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডের সময় ধাধাভিত্তিক খেলা ‘এসকেপ রুম’ - এ আটকা পড়ে তাদের মৃত্যু হয় বলে জানায় এসোসিয়েটেড প্রেস (এপি)।

শনিবার (৬ ডিসেম্বর) দেশটির কোসজালিন শহরে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত কিশোরীদের সবার বয়স ১৫'র কাছাকাছি বলে জানিয়েছেন ঘটনার তদন্তে নিযুক্ত কর্মকর্তারা। এছাড়া ২৫ বছর বয়সী একজনকে  মারাত্মকভাবে দগ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

প্রথমে দেশটির বাহিনীর কর্মীরা বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট ও জরুরি ব্যবস্থাপনার দুর্বলতাকে দায়ী করেছিলেন। দেশটির ফায়ার সার্ভিসের প্রধান লেসজেক সুস্কি বলেন, "এই ঘটনায় মারাত্মকভাবে পুড়ে যাওয়া ব্যক্তি হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তা্র কথা বলার মতো অবস্থা নেই"।

সুস্কি আরো জানান, অগ্নিকাণ্ডের সময় খেলার নিয়মানুযায়ী ঘরের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ থাকায় তারা ঘরের ভেতর থেকে কিশোরীদের উদ্ধার করতে পারেননি।

তবে, এমন বিবৃতির পরও পোল্যান্ডের দমকল বাহিনীর কর্মদক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এ বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে। 

কোসজালিনের প্রসিকিউটর রিসচার্ড গাসিওরোস্কি বলেন, "তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার সিলিন্ডারড গ্যাস লিক হয়ে এই আগুন লাগতে পারে। তবে, ঘটনার মূল প্রতক্ষদর্শী মারাত্মকভাবে আহত থাকায় কথা বলতে পারছেন না বলে এখনই এই কিশোরীদের অকালমৃত্যুর সঠিক কারণ সম্পর্কে বলা যাচ্ছেনা"।

উল্লেখ্য, এসকেপ গেম মূলত একটি অন্ধকার বদ্ধ ঘরে খেলা হয়। অংশগ্রহণকারীদের বিভিন্ন ধাধার সমাধান করে বের হওয়ার পথ খুঁজতে হয়। শহরটিতে তেমনই এক ঘরে জন্মদিনের উৎসব করছিলো ওই পাঁচ কিশোরী। সেখানে অগ্নিকাণ্ডে প্রাণ হারাতে হয় তাদের।

অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পর স্থানীয় পুলিশ কর্তৃপক্ষ এসকেপ রুমটি বন্ধ করে দিয়েছে।