• শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০২ রাত

বাড়ি ফিরতে ১০ মিনিট দেরি হওয়ায় মোবাইল ফোনেই তালাক!

  • প্রকাশিত ০৪:৫০ বিকেল জানুয়ারী ৩০, ২০১৯
তিন তালাক
প্রতীকী ছবি (সংগৃহীত)

তিনি আরও জানান, বিয়ের সময় বরপক্ষের চাহিদা মতো যৌতুক দিতে না পারায় প্রায়ই তাকে মারধর করা হতো। এমনকি একবার গর্ভপাতও করানো হয়।

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষ  তিন তালাক প্রথাকে অবৈধ ঘোষণা দিয়ে বিল পাস হয়েছিল ভারতের জাতীয় পার্লামেন্টে। কিন্তু কিছুদিন যেতে না যেতেই ফের তিন তালাকের ঘটনার খবর পাওয়া গেছে দেশটির উত্তরপ্রদেশে। বাড়ি ফিরতে দেরি হওয়ায় মোবাইল ফোনেই স্ত্রী-কে তিন তালাক দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে দেশটির উত্তরপ্রদেশের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে।

ভুক্তভোগী নারী জানিয়েছেন, কিছুদিন আগে মায়ের বাড়ি যেতে চাইলে বাধ সাধেন তার স্বামী। পরে আধঘন্টার মধ্যে ফিরে আসার প্রতিশ্রুতি দিলে অনুমতি দেওয়া হয়।

তিনি বলেন, “অসুস্থ দাদিকে দেখতে আমি মায়ের বাড়িতে গিয়েছিলাম। আমার স্বামী বলেছিলেন আধঘণ্টার মধ্যে ফিরে আসতে। কিন্তু মাত্র ১০ মিনিট দেরি হওয়ায় আমার ভাইয়ের কাছে ফোন করে ‘তিন তালাক’ দেন স্বামী। ‘’ এ ঘটনায় পুরোপুরি ভেঙে পড়েছেন বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন ওই নারী।

ওই নারী আরও জানান, বিয়ের সময় বরপক্ষের চাহিদা মতো যৌতুক দিতে না পারায় প্রায়ই তাকে মারধর করা হতো। এমনকি একবার জোর করে গর্ভপাতও করানো হয়। ন্যায়বিচার না পেলে আত্মহত্যা করারও হুমকি দিয়েছেন তিনি।

তবে এ বিষয়ে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে স্থানীয় পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত ২৭ ডিসেম্বর তিন তালাক প্রথাকে অবৈধ ঘোষণা করে বিল পাস করে ভারতের পার্লামেন্ট। সেখানে তিন তালাককে অপরাধ হিসাবে গণ্য করা হয় এবং অভিযুক্তকে তিন বছরের কারাদণ্ডের বিধি ঘোষণা করা হয়।