• বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৫ রাত

রাশিয়ায় জনবসতিতে শ্বেতভাল্লুকের হানা, জরুরি অবস্থা ঘোষণা

  • প্রকাশিত ০৬:১২ সন্ধ্যা ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯
শ্বেতভাল্লুক
খাদ্যের সন্ধানে লোকালয়ে ঢুকে পড়ে শ্বেতভাল্লুকগুলো। ছবি: এএফপি (ফাইল ছবি)

বর্তমানে ঐ জনবসতিতে ৬ থেকে ১০টি শ্বেতভাল্লুক অবস্থান করছে  

রাশিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় আরখানগেলস্কের উত্তর মহাসাগরে অবস্থিত নোভায়া জেমলিয়া দ্বীপপুঞ্জে বেশ কয়েকটি শ্বেতভাল্লুক জনবসতিতে হানা দেওয়ায় কর্তৃপক্ষ ওই এলাকায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে। রাশিয়ার বার্তা সংস্থা তাস এর এক খবরে এই তথ্য জানা গেছে।

শনিবার আরখানগেলস্কের গভর্ণর ও আঞ্চলিক সরকার কর্তৃক প্রকাশিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, "জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলায় ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কমিশনের সভায় ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে নোভায়া জেমলেই অঞ্চলে জরুরি অবস্থা ঘোষণার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।" 

বিজ্ঞপ্তিত্তে আরো বলা হয়, "আবাসিক এলাকায় বেশ কয়েকটি শ্বেতভাল্লুক হানা দেওয়ায় এই জরুরি অবস্থা জারি করা হলো"।

নোভায়া জেমলিয়া প্রশাসনের উপপ্রধান আলেক্সান্ডার মিনাইয়েভ জানান, গত ডিসেম্বরে বেশ কয়েকটি শ্বেত ভাল্লুক জনবসততিতে হানা দেয়। পরে বেশ কয়েকটি শ্বেত ভাল্লুক জনবসতিতে বসবাসরত মানুষের ওপর হামলা চালায় এবং আবাসিক ভবন ও অফিসে ঢুকে পড়ে তছনছ করে।

বর্তমানে ঐ জনবসতিতে ছয় থেকে ১০টি শ্বেতভালুক অবস্থান করছে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে। এদিকে এই ঘটনায় আতঙ্ক বিরাজ করছে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে। আঞ্চলিক সরকারের এক বিবৃতিতে বলা হয়, "‘স্থানীয় স্কুল ও কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষার্থীরা তাদের নিরাপত্তা চেয়ে মৌখিক ও লিখিতভাবে অভিযোগ দায়ের করেছে। মানুষ আতঙ্কে আছে। তারা বাড়ি থেকে বের হয়ে দৈনন্দিক কার্যক্রম চালাতে ভয় পাচ্ছে। বাবা মা তাদের সন্তানকে স্কুলে পাঠাতে ভয় পাচ্ছে।"

উল্লেখ্য, শিশুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ঐ এলাকার কিন্ডারগার্টেনগুলোর চারপাশে অতিরিক্ত বেড়া লাগানো হয়েছে।

এছাড়াও সেনা সদস্য ও চাকরীজীবীদের বিশেষ যানবাহনে করে কর্মস্থলে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এর পাশাপাশি  সেনা সদস্যরা ওই এলাকায় টহলও দিচ্ছে সদেশ্তির সেনাবাহিনীর সদস্যরা।