• সোমবার, জুন ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৯ রাত

পাকিস্তানে ভারতীয় পাইলটের বন্দি হবার অবিশ্বাস্য বর্ণনা

  • প্রকাশিত ০৫:২৯ সন্ধ্যা ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৯
ভারতীয় বৈমানিক অভিনন্দন বর্তমান
পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হাতে চোখ বাধা অবস্থায় আটক ভারতীয় বৈমানিক অভিনন্দন ভর্থমান। ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের মাটিতে নামার পর ঐ ভারতীয় পাইলট দ্রুত একটি পুকুরে ঝাঁপ দিয়ে তার সাথে থাকা গোপনীয় তথ্যসমৃদ্ধ কাগজের বেশ কিছুটা গিলে ফেলেন

পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হাতে আটক ভারতীয় পাইলট নিরাপত্তা নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ভারত।  বুধবার রাতে দিল্লি থেকে এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে পাকিস্তানের হাতে আটক ঐ পাইলটকে নিরাপদে ভারতে ফিরিয়ে দিতে বলা হয়।

আটক ঐ ভারতীয় পাইলটের নাম অভিনন্দন বলে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ‘দ্য ডনের’ একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। প্রতিবেদনে এ ঘটনায় পাকিস্তান সেনাবাহিনী উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে বুধবার সকালে দিনের আলোতে ২টি ভারতীয় বিমান ভূপাতিত করে পাকিস্তানি বিমানবাহিনী। এই দু’টি বিমানের একটি ভারতীয় অংশে পড়ে। তবে, আরেকটি বিমান পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের সীমানার মধ্যে পড়ে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী  মোহাম্মদ রাজ্জাক চৌধুরীকে (৫৮) উদ্ধৃত করে দ্য ডনের প্রতিবেদনে বলা হয়, “বুধবার সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে দুটি যুদ্ধবিমানের লড়াইয়ের শব্দ শুনতে পাই। ধোঁয়াও দেখি সাথে সাথে। দু’টি বিমানেই আগুন লেগে গিয়েছিল। একটি নিয়ন্ত্রণরেখা ধরে এগিয়ে গেলেও আরেকটিতে আগুন লেগে দ্রুত নিচে নামতে থাকে। আমার বাড়ি থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে ওই বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। ঐ বিমান থেকে প্যারাসুটের মাধ্যমে একজন পাইলট নেমে আসেন”।

পাকিস্তানের মাটিতে নামার পর ঐ ভারতীয় পাইলট দ্রুত একটি পুকুরে ঝাঁপ দিয়ে তার সাথে থাকা গোপনীয় তথ্যসমৃদ্ধ কাগজের বেশ কিছুটা গিলে ফেলেন এবং বাকি কাগজগুলো পানিতে নষ্ট করার চেষ্টা চালান। এসময় স্থানীয় তরুণেরা ঐ ভারতীয় পাইলটকে আটক করার জন্য তার দিকে এগিয়ে যান।

সহকর্মীদের সাথে পাকিস্তানে বন্দি ভারতীয় বৈমানিক অভিনন্দন (বাম থেকে তৃতীয়)। ছবি: সংগৃহীত

তবে, পাইলট অভিনন্দনের কাছে পিস্তল থাকায় তারা প্রথমে কিছু করতে পারেননি। এসময় অভিনন্দন তাদের কাছে জানতে চান যে ঐ জায়গাটি ভারতের সীমার মধ্যে কিনা।  পাকিস্তানি তরুণেরা তখন জায়গাটিকে ভারতের বলে জানান। তখন ঐ ভারতীয় বৈমানিক ভারতের পক্ষে স্লোগান দিলে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন স্থানীয় তরুণেরা।

সবকিছু বোঝার পর অভিনন্দন দ্রুত সেখান থেকে পালাতে চেষ্টা করেন। প্রায় আধা কিলোমিটার দৌড়ে একটি পুকুরে ঝাঁপ দেন তিনি। এসময় যে তরুণেরা তাকে পিস্তল ফেলে দিতে বললেও তা ফেলে দেননি অভিনন্দন। এক পর্যায়ে পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর সদস্যরা এসে ঐ ভারতীয় বৈমানিককে আটক করেন। তবে, তার আগেই স্থানীয় তরুণেরা তাকে প্রচণ্ড মারধোর করেন।

পরবর্তীতে আটক ভারতীয় বৈমানিকের রক্তাক্ত ছবিসহ তাকে আটকের পুরো বিষয়টি একটি ভিডিও আকারে প্রকাশ করে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী। যদিও কিছুক্ষণের মধ্যেই ভিডিওটি সরিয়ে ফেলা হয়।

এর আগে পাকিস্তান সেনাবাহিনী ২টি ভারতীয় বিমান ভূপাতিত করেছে বলে দাবি করলেও ভারত তা অস্বীকার করে। তবে, অভিনন্দনের রক্তমাখা ছবি প্রকাশ হওয়ার পর দিল্লি বুধবারের আনুষ্ঠানিক বিবৃতির মাধ্যমে বৈমানিক আটকের বিষয়টি স্বীকার করে নিল ভারত। 

এসব ঘটনার প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিরাপত্তা নিয়ে উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে বসবেন বলে দেশটির বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে। এদিন মোদির সরকারি বাসভবনে মন্ত্রিসভার বৈঠক হবে যেখানে পাকিস্তানে আটক পাইলটকে উদ্ধারের বিষয়টি সর্বাধিক গুরুত্ব পাবে বলে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভির একটি খবরে উল্লেখ করা হয়েছে।

এদিকে, ভারতীয় বৈমানিক আটকের ঘটনায় পাকিস্তানে রাতারাতি তারকা হয়ে গেছেন স্কোয়াড্রন লিডার হাসান সিদ্দিকী। তিনি এই দু’টি বিমানের একটি ভূপাতিত করেছেন। আকাশযুদ্ধে হাসান সিদ্দিকীর বীরত্ব নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিও ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছে সমগ্র পাকিস্তান জুড়ে।