• শনিবার, অক্টোবর ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৩৮ রাত

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি

  • প্রকাশিত ০৫:১৯ সন্ধ্যা মার্চ ২২, ২০১৯
নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন
নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন। ছবি: রয়টার্স

নিউজিল্যান্ড পুলিশের এক মুখপাত্র জানান, টুইটারের পোস্টগুলো সম্পর্কে তারা জানেন। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্নকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে বিষয়টি তদন্ত শুরু দেখছে দেশটির পুলিশ। শুক্রবার এমন খবর জানিয়েছে দ্য নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড।

আরডার্নের টুইটার অ্যাকাউন্টে ‘এরপর তুমি’ ক্যাপশন লিখে একটি বন্দুকের ছবি পাঠানো হয়েছে। পোস্টটি ৪৮ ঘণ্টা অনলাইনে ছিল। এরপর একাধিক ব্যবহারকারী পোস্টটিকে রিপোর্ট করলে সেটি সরিয়ে নেয় টুইটার কর্তৃপক্ষ। একইসঙ্গে পোস্টদাতার একাউন্টটিও বাতিল করে দেওয়া হয়।

তবে একই ছবি ও ক্যাপশন দিয়ে নিউজিল্যান্ড পুলিশ ও আরডার্নের টুইটার একাউন্ট ট্যাগ করে আরও একটি পোস্ট করা হয়।

উল্লেখ্য, বাতিল করা টুইটার অ্যাকাউন্টটিতে ইসলাম-বিরোধী ও শ্বেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের সমর্থনে পোস্ট পাওয়া গেছে।

নিউজিল্যান্ড পুলিশের এক মুখপাত্র জানান, টুইটারের পোস্টগুলো সম্পর্কে তারা জানেন। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে।


এদিকে, সহিংস হুমকি দেওয়া টুইটারের নীতিমালা বিরোধী বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির এক মুখপাত্র।

তিনি বলেন, আমরা ওই টুইটটি সম্পর্কে প্রথম রিপোর্ট পাওয়ার পরপরই এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিয়েছি। আমাদের টিম টুইটার থেকে ক্রাইস্টচার্চ হামলা সম্পর্কিত সকল অবৈধ ও নীতিমালা লঙ্ঘনকারী সকল পোস্ট সরিয়ে ফেলতে কাজ করে যাচ্ছে।

এ বিষয়ে টুইটার নিউজিল্যান্ডের আইন প্রয়োগকারী বাহিনীকে সহযোগিতা করছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (১৫ মার্চ) নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে হামলা চালায় এক বন্দুকধারী। এতে প্রাণ হারান ৫০ জন মানুষ। টুইটার ওই হামলায় হতাহতদের প্রতি সমর্থন জানিয়ে একটি টুইট করার পর প্রধানমন্ত্রী আরডার্নকে হুমকি দিয়ে পোস্টটি তাদের নজরে আনা হয়।