• রবিবার, অক্টোবর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০০ রাত

সম্পর্ক আরো ঘনিষ্ঠ করতে চান কিম ও পুতিন

  • প্রকাশিত ০৫:০৯ সন্ধ্যা এপ্রিল ২৫, ২০১৯
কিম জং উন-ভ্লাদিমির পুতিন
রাশিয়ার ভ্লাদিভস্তক শহরে করমর্দনরত রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। ছবি: এএফপি।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে হ্যানয়ে সম্মেলনের পর এ সম্মেলনই ছিল অপর কোনও রাষ্ট্র প্রধানের সঙ্গে এটাই কিমের প্রথম সরাসরি বৈঠক

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উন দু’দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরো ঘনিষ্ঠ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন। বৃহস্পতিবার প্রথমবারের মতো সরাসরি আলোচনায় তারা এই অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন বলে এএফপি'র একটি খবরে বলা হয়েছে।

রাশিয়ার ভ্লাদিভস্তক শহরে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে কিম তাদের পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে ওয়াশিংটনের সাথে সৃষ্ট অচলাবস্থার ক্ষেত্রে রাশিয়ার সহযোগিতা চান। এদিকে পুতিন চাচ্ছেন বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ আরেকটি বিষয়ে মস্কোকে অন্তর্ভুক্ত করতে।

আলোচনায় যাওয়ার আগে দেয়া বিবৃতিতে উভয় নেতা ঐতিহাসিক সম্পর্ক জোরদারের জন্য তাদের আশা ব্যক্ত করেছিলেন।

আলোচনা শেষে কিম বলেন, "আমি মনে করি দু’দেশের মধ্যে সম্পর্কোন্নয়নে এটি হবে অত্যন্ত ফলপ্রসূ বৈঠক। বিশ্ব কোরীয় উপদ্বীপের বিষয়ে গুরুত্ব দেয়ায় আমি মনে করি আমরা অত্যন্ত অর্থবহ সংলাপ করতে পারবো"।

এসময় পুতিন কিমকে বলেন, কোরীয় উপদ্বীপের উত্তেজনা নিরসনের চলতি প্রচেষ্টার প্রতি তার সমর্থন রয়েছে। পুতিন উত্তর কোরিয়ার সাথে অর্থনৈতিক সম্পর্ক জোরদার করতে চান।

রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, "আমি দৃঢ়ভাবে আশাবাদী যে কোরীয় উপদ্বীপের এমন উত্তেজনাপূর্ণ পরিস্থিতি আমরা কিভাবে নিরসন করতে পারি সে ব্যাপারে আপনার এই সফর আমাদেরকে সহায়তা করবে এবং এক্ষেত্রে ইতিবাচক প্রক্রিয়ায় রাশিয়া কিভাবে সহযোগিতা করতে পারে সে ব্যাপারেও আপনার এই সফর আমাদের জন্য সহায়ক হবে"।

পুতিন আরো বলেন, "দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে আমরা অর্থনৈতিক সম্পর্কোন্নয়নের ক্ষেত্রে অনেক কিছু করতে পারি।"

উল্লেখ্য, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে হ্যানয়ে সম্মেলনের পর এ সম্মেলনই ছিল অপর কোনও রাষ্ট্র প্রধানের সঙ্গে এটাই কিমের প্রথম সরাসরি বৈঠক। গত ফেব্রুয়ারিতে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে হ্যানয়ে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠক কোন চুক্তি ছাড়াই শেষ হয়।