• রবিবার, মে ২৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:১৩ দুপুর

হ্যারি-মেগানের সন্তানকে শিম্পাঞ্জি বলে চাকরি হারালেন বিবিসির সাংবাদিক

  • প্রকাশিত ০২:০০ দুপুর মে ১০, ২০১৯
ড্যানি বেকার
বরখাস্ত হওয়া বিবিসি সাংবাদিক ড্যানি বেকার এবং তার বিতর্কিত টুইট। ছবি: সংগৃহীত।

তার বিরুদ্ধে বর্ণবাদের অভিযোগ তুলেছেন অনেকে

ব্রিটিশ রাজপরিবারের সদ্যজাত সন্তানকে 'শিম্পাঞ্জি' বলে বিদ্রুপ করে টুইট করায় চাকরি হারিয়েছেন বিবিসি'র এক সাংবাদিক। বৃহস্পতিবার ড্যানি বেকার নামের বিবিসির রেডিও ৫ লাইভের এই উপস্থাপককে বরখাস্ত করা হয় বলে কাতার ভিত্তিক গণমাধ্যম আলজাজিরার একটি প্রতিবেদনে জানানো হয়।

জানা যায়, গত বুধবার ড্যানি স্যুট টাই পড়া এক শিম্পাঞ্জির ছবি দিয়ে টুইট করেছিলেন যে ‘রাজপুত্র হাসপাতাল ছাড়ছে'। এই একি দিনে নিজেদের সন্তানসহ প্রথমবারের মতো ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়েছিলেন প্রিন্স হ্যারি ও মেগান মার্কেল।

উল্লেখ্য, মেগানের বাবা টমাস শ্বেতাঙ্গ আমেরিকান এবং মা গ্লোরিয়া অ্যাফ্রো-আমেরিকান। এর ফলে প্রিন্স হ্যারি এবং মেগানের প্রথম সন্তান মিশ্র বর্ণের যা ব্রিটিশ রাজপরিবারের ইতিহাসে প্রথম। তাই ড্যানির এই টুইটে তার বিরুদ্ধে বর্ণবাদের অভিযোগ তোলেন দেশটির সাধারণ মানুষ। মূলত মেগানের মা শ্বেতাঙ্গ না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে এমন গুরুতর অভিযোগ করা হয়।


অবশ্য নিজের ভুল বুঝতে পেরে পোস্টটি মুছে ফেলে ক্ষমা চান তিনি। সেখানে তার পোষ্টের ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। তবে, শেষরক্ষা হয়নি। বৃহস্পতিবার তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করে বিবিসি কর্তৃপক্ষ। নিজের চাকরি হারানোর খবরটিও টুইট করেন ড্যানি।


এ প্রসঙ্গে বিবিসি রেডিও লাইভ ৫ এর আরেক উপস্থাপক কৃষ্ণাঙ্গ স্কারলেট ডগলাস বলেন, "ওকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্তটি সঠিক। কারণ ও ক্ষমা চেয়েছে অন্য কারো পরামর্শে। নিজের মন থেকে ও ক্ষমা চাইনি বলেই আমার বিশ্বাস"।

এ প্রসঙ্গে বিবিসি থেকে একটি আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে বলা হয়, "ড্যানি একজন দারুণ সাংবাদিক তবে তিনি আর আমাদের সঙ্গে সাপ্তাহিক অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় থাকছেন না। ড্যানির টুইট একটি মারাত্মক ভুল ছিলো। এটা আমরা যেই লক্ষ্য নিয়ে কাজ করি এটা সেই মূল্যবোধের পরিপন্থী"। 

বিবিসি আরও জানায়, বিখ্যাত অনেক কৃষ্ণাঙ্গ ফুটবল তারকারা ড্যানির এই পোস্ট নিয়ে বিবিসি'র কাছে অভিযোগ করেছেন।