• সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:২৪ রাত

লাশকাটা ঘর থেকে বেঁচে ফিরলেন তরুণ

  • প্রকাশিত ০৬:৫৮ সন্ধ্যা মে ১২, ২০১৯
লাশ
প্রতীকী ছবি

তার শরীরে কাটার জন্য ছুরি দিয়ে চিহ্নও দেওয়া হয়েছিল।

গঞ্জালো মন্টোয়া জিমেনেজ (২৯) নামের এক বন্দির স্পেনের একটি হাসপাতালে মৃত্যু হয়। চিকিৎসকরাও নিশ্চিত করেন, তিনি আর বেঁচে নেই। যথারীতি লাশ পাঠানো হলো লাশকাটা ঘরে। এরপরই ঘটলো অদ্ভুত এক ঘটনা। 

সংবাদমাধ্যম খালিজ টাইমসের খবরে বলা হয়, জিমেনেজের মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হতে লাশ ময়নাতদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়। চার ঘণ্টা পর লাশ নেওয়া হয় ময়নাতদন্তের টেবিলে। আর তখনই নড়ে জিমেনেজের লাশ। জানা যায় তিনি আদতে বেঁচে আছেন।  

ওই বন্দির এক আত্মীয় বলেন, ময়নাতদন্তের কাজ প্রায় শুরু হয়ে গিয়েছিল। এমনকি তার শরীরে কাটার জন্য ছুরি দিয়ে চিহ্নও দেওয়া হয়েছিল।

তার পরিবারের সদস্যরা এমন অবস্থার জন্য জিমেনেজকে মৃত ঘোষণা করা তিন চিকিৎসকের অবহেলাকে দায়ী করছেন। তারা বলেছেন সেখানে আদতেই তিনজন চিকিৎসক ছিলেন না। একজন তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বাকি দুইজন শুধু মৃত্যুর সনদে স্বাক্ষর করে দেন।   

এদিকে এমন পরিস্থিত পর পরই জিমেনেজকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। তিনি ঝুঁকিমুক্ত বলে জানা গেছে।