• বুধবার, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪১ দুপুর

কাশ্মীরে জমি কেনায় নিয়ন্ত্রণ চায় বিজেপি!

  • প্রকাশিত ০৩:০৮ বিকেল আগস্ট ১১, ২০১৯
কাশ্মীর
ছবি: এএফপি

হিমাচলপ্রদেশ ও উত্তরাখণ্ডের আদলে জম্মু-কাশ্মীরে জমি আইন প্রণয়নের দাবি জানিয়েছে তারা

জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বিলোপের সঙ্গে সেরাজ্যে জমি কেনার উপরে বিধি-নিষেধও উঠেছে। তবে, সেখানে জমি কেনার বিষয়ে নিয়ন্ত্রণের দাবি তুলেছে ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপি’রই জম্মু-কাশ্মীর শাখা। হিমাচলপ্রদেশ ও উত্তরাখণ্ডের আদলে জম্মু-কাশ্মীরে জমি আইন প্রণয়নের দাবি জানিয়েছে তারা। খবর আনন্দবাজার।

সংবিধানের ৩৫এ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী জম্মু-কাশ্মীরে কেবল স্থায়ী বাসিন্দারাই জমি কিনতে পারতেন। বিশেষ মর্যাদা লোপ পাওয়ার সাথেসাথে ৩৫এ অনুচ্ছেদও বাতিল হয়েছে। 

বিজেপি’র রাজ্য সভাপতি রবীন্দ্র রায়নার দাবি, ‘‘বিশেষ মর্যাদা লোপ পেয়েছে বলে বাইরের যে কেউ এরাজ্যে জমি কিনতে পারবেন ভাবা ঠিক নয়। এরাজ্যে নির্দিষ্ট সময় ধরে বাস করছেন এমন ব্যক্তিকেই জমি কেনা বা চাকরির সুযোগের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।’’

হিমাচলে রাজ্য সরকারের অনুমতি ছাড়া বাইরের কেউ কৃষিজমি কিনতে পারেন না। উত্তরাখণ্ডে বাইরের কেউ সর্বোচ্চ ২৫০ বর্গমিটার কৃষিজমি কিনতে পারেন। উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতেও জমি কেনার ক্ষেত্রে এই ধরনের নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। 

জম্মু-কাশ্মীর বিজেপির নেতা নরেন্দ্র গুপ্ত বলেন, ‘‘এই রাজ্যেও নিয়ন্ত্রণ থাকবে। কোনও কোনও শিবির থেকে অকারণে আতঙ্ক ছড়ানো হচ্ছে। আগে জমির মালিকানা ছিল কিছু প্রভাবশালীর হাতে। এখন সাধারণ স্থানীয় বাসিন্দারাও জমি কেনার সুযোগ পাবেন।’’