• বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:২৮ রাত

ইমরান খান: কাশ্মীরের জন্য ভারতকে 'চরম মূল্য' দিতে হবে

  • প্রকাশিত ১২:৩৫ দুপুর আগস্ট ১৫, ২০১৯
ইমরান খান।
ইমরান খান। ফাইল ছবি। এএফপি

ইমরান খান বলেন, ‘নরেন্দ্র মোদী কৌশলগতভাবে ভুল করেছেন। তিনি তার শেষ কার্ডটি আগেই খেলে ফেলেছেন’

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, ভারত নিয়ন্ত্রণে কাশ্মীরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পদক্ষেপ একটি 'কৌশলগত ভুল' আর এজন্য তাকে 'চরম মূল্য দিতে হবে।'

পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বুধবার পাকিস্তান- নিয়ন্ত্রিত আজাদ কাশ্মীরের রাজধানী মুজফফরাবাদে যান এবং সেখানকার আইন পরিষদের এক বিশেষ অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন। সেখানে তিনি এসব কথা বলেন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি।

তিনি বলেন, "নরেন্দ্র মোদী কৌশলগতভাবে ভুল করেছেন। তিনি তার শেষ কার্ডটি আগেই খেলে ফেলেছেন। তারা এখন কাশ্মীরকে আন্তর্জাতিক ইস্যু বানিয়ে ফেলেছে।”

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ভারতের সংবিধান থেকে কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দেয়া অনুচ্ছেদ ৩৭০'র বিলোপ এবং ঐ রাজ্যের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয়ার প্রতি ইঙ্গিত করছিলেন।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নিজেকে কাশ্মীরের একজন প্রতিনিধি হিসেবে বর্ণনা করে ভারতের তরফে, তার ভাষায়, যে কোন দুর্ঘটনার বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি জানান।

পাকিস্তানের রাষ্ট্র-নিয়ন্ত্রিত বার্তা সংস্থা এপিপি খবর দিচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী খান তার ভাষণে কাশ্মীরের আইন পরিষদকে জানিয়েছেন যে ভারত আজাদ কাশ্মীরে হামলা চালানোর পরিকল্পনা করছে।

ভারতের তরফে যে কোন হুমকি মোকাবেলার জন্য পাকিস্তানের সরকার এবং সামরিক বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে বলে ইমরান খান আইন পরিষদকে জানান।

অন্যান্য বছরের তুলনায় পাকিস্তান এবার তার স্বাধীনতা দিবসকে ভিন্নভাবে উদযাপন করছে। এই দিনটিকে তারা 'কাশ্মীর সংহতি দিবস' হিসেবে পালন করছে। এই উপলক্ষে সরকারের তরফ থেকে নতুন একটি লোগো প্রকাশ করা হয়েছে যাতে লেখা হয়েছে 'কাশ্মীর বনেগা পাকিস্তান' অর্থাৎ কাশ্মীর হবে পাকিস্তান। দেশটির প্রধান টেলিভিশন চ্যানেলগুলোও তাদের পর্দায় এই লোগো ব্যবহার করা হয়েছে।

এবারের ঈদ এবং স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে পাকিস্তানের টিভি চ্যানেলগুলোতে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করা হচ্ছে না বলে বিবিসির উর্দু বিভাগ জানাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার অর্থাৎ ১৫ই অগাস্ট ভারতের স্বাধীনতা দিবসকে পাকিস্তান কালো দিবস হিসেবে পালন করবে বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে। এসময় সরকারি বেসরকারি ভবনগুলোতে পতাকা অর্ধনমিত রাখা হবে বলে সরকারি কর্মকর্তারা জানাচ্ছেন।