• বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:২৭ রাত

এনআরসি থেকে বাদ গেলো বিজেপি নেত্রীর নাম!

  • প্রকাশিত ০৩:১০ বিকেল সেপ্টেম্বর ২, ২০১৯
এনআরসি
ফাইল ছবি: বিবিসি

এনআরসি থেকে বাদ পড়েছেন রাজ্যের প্রায় ১৯ লাখ ৬ হাজার ৬৫৭ জন মানুষ

মাস তিনেক আগে ভারতের লোকসভা নির্বাচনের সময় বাড়ি বাড়ি গিয়ে আশ্বস্ত করেছিলেন বিজেপি নেত্রী ববিতা পাল। বলেছিলেন, হিন্দু বাঙালিদের চিন্তার কোনো কারণ নেই। মোদী সরকার আবার ক্ষমতায় এলে এনআরসি (চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা) থেকে কোনো হিন্দু বাদ পড়বেন না। কিন্তু ববিতা নিজেই তার ছেলেসহ বাদ পড়েছেন তালিকা থেকে। 

আসামের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম যুগশঙ্খ পত্রিকার বরাত দিয়ে এতথ্য জানিয়েছে বাংলা ট্রিবিউন।

৩১ আগস্ট (শনিবার) স্থানীয় সময় সকাল দশটায় অনলাইনে ও এনআরসি সেবাকেন্দ্রে প্রকাশিত আসামের চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা (এনআরসি) থেকে বাদ পড়েছেন রাজ্যের প্রায় ১৯ লাখ ৬ হাজার ৬৫৭ জন মানুষ।

এক বিবৃতিতে এনআরসি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, চূড়ান্ত তালিকায় মোট আবেদনকারীদের মধ্যে ৩ কোটি ৩০ লাখের মধ্যে নাগরিক হিসেবে তালিকাভুক্ত হয়েছেন ৩ কোটি ১১ লাখ ২১ হাজার ৪ জন।

ববিতা বিজেপির কাছাড় জেলা কমিটির সদস্য এবং কাটিগড়া মণ্ডল কমিটির সভানেত্রীও। তার স্বামী রুপম পালও বিজেপির নেতা। হিন্দুদের সুরক্ষার শুধু বিজেপিই দেবে এমন ধারণার প্রচার করেও নিজেই বিজেপি শাসনে রাষ্ট্রহীন হয়ে পড়লেন। শনিবার চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পর তিনি দেখতে পান তালিকায় নেই ছেলেসহ তার নিজের নাম। ববিতার ভাসুরের দুই মেয়ের নামও বাদ পড়েছে তালিকা থেকে।

ববিতা সাংবাদিকদের বলেন, ৫২ ও ৬৬ সালের ভোটার তালিকায় নাম আছে তার বাবা ও ঠাকুরদার। জমির দলিলও আছে। কিন্তু তাও চূড়ান্ত তালিকা থেকে তাদের নাম ছেঁটে ফেলা হয়েছে।