• মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৩৯ রাত

ভারতীয় পুলিশ : গণপিটুনি নয়, হৃদরোগে মৃত্যু হয় মুসলিম তরুণের

  • প্রকাশিত ০৫:১১ সন্ধ্যা সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৯
তাবরেজ আনসারী
তাবরেজ আনসারি

সেসময় করা একটি ভিডিওতে দেখা যায়, মারধরের পাশাপাশি তাকে 'জয় শ্রীরাম' বলতেও বাধ্য করা হয়।

ভারতের ঝাড়খণ্ড রাজ্যে গত জুনে গণপিটুনির পর নিহত হন তাবরেজ আনসারি নামের এক মুসলিম তরুণ। সেসময় করা একটি ভিডিওতে দেখা যায়, মারধরের পাশাপাশি তাকে 'জয় শ্রীরাম' বলতেও বাধ্য করা হয়। তবে তবরেজের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনের জের ধরে পুলিশ জানিয়েছে, পিটুনি নয় বরং হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় তার।  

গণপিটুনিতে মারাত্মকভাবে আহত হওয়ার চার দিন পরে ২২ জুন একটি হাসপাতালে মারা যান তাবরেজ আনসারি। তিনি দুই সহযোগীকে নিয়ে ঝাড়খণ্ডের সারাইকেলা-খারওয়ান এলাকায় মোটরসাইকেল চুরি করছিলেন বলে অপবাদ দেওয়া হয়। এ নিয়ে সেসময় ভারতজুড়ে নিন্দার ঝড় ওঠে।  

সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, পুনেতে দিনমজুরের কাজ করতেন তাবরেজ। ঈদে পরিবারের সঙ্গে কাটাতে তিনি গ্রামে গিয়েছিলেন। সে সময়ই তার বিয়ের আয়োজন করেছিল পরিবার।

কার্তিক এস নামের ঝাড়খণ্ড পুলিশের এক কর্মকর্তা এনডিটিভিকে জানান, মেডিকেল রিপোর্টে হত্যার পক্ষে কোনো সমর্থনযোগ্য প্রমাণ মেলেনি যার ভিত্তিতে হত্যাকাণ্ডের অভিযোগে অভিযুক্তদের দোষী সাব্যস্ত করা করা যেতে পারে। হৃদরোগে তাবরেজের মৃত্যু হয় বলে আলাদা দুটি ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে পাওয়া গেছে। 

কার্তিক এস বলেন, "আমরা প্রথমবার যখন এই মেডিকেল রিপোর্ট পাই তখন আমরা উচ্চ পর্যায়ের বিশেষজ্ঞদের কাছ থেকে দ্বিতীয়বার মতামত চেয়েছিলাম।কিন্তু তারাও একই মতামত দিয়েছেন।" 

তবে নিহত তাবরেজ আনসারির পরিবারের অভিযোগ, তার মাথা একেবারে থেঁতলে দেওয়া হয়েছিল। এ বিষয়ে জানতে চাইলে পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, তারা কেবল মেডিকেল রিপোর্ট অনুযায়ীই পদক্ষেপ নিতে পারেন।