• শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:২৬ দুপুর

স্ত্রীর কাটা মাথা নিয়ে থানায় হাজির স্বামী

  • প্রকাশিত ০৭:২৮ রাত নভেম্বর ১১, ২০১৯
লাশ

ওই ব্যক্তি জানান, তার স্ত্রীর বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্ক ছিলো

ভারতের উত্তর প্রদেশ রাজ্যে মদ্যপানে বাধা দেওয়ার স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা করেছেন স্বামী। এমনকি হত্যার পর কাটা মাথা নিয়ে স্থানীয় থানায় হাজির হয়ে ঘটনা স্বীকারও করেন তিনি।  

স্থানীয় সময় রবিবার (১০ নভেম্বর) আগ্রার হরিপর্বত থানার ইতমাদুদৌলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরদিন সকালে থানায় গিয়ে পুলিশের কাছে ধরা দেন স্বামী। 

অভিযুক্ত ওই ব্যাক্তির নাম নরেশ। তিনি একজন টিভি মেকানিক। ১৭ বছর আগে শান্তি নামের ওই নারীর সঙ্গে তার বিয়ে হয়। তাদের তিন মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। 

বার্তা সংস্থা আইএনএসের খবরে বলা হয়, নরেশ একজন মদ্যপ ছিলেন। এ নিয়ে স্ত্রী শান্তির সঙ্গে তার প্রায়ই ঝগড়া হতো। রবিবার রাতেও নরেশ মদ্যপান করতে গেলে শান্তি বাধা দেন। এতে তিনি চটে গিয়ে স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা করেন। পরে কাটা মাথা একটি পাত্রে রাখেন এবং শরীর নিজের ঘরে তালাবন্ধ করে দেন।  

সোমবার সকালে মাকে খুঁজে না পেয়ে ওই দম্পতির বড় মেয়ে বাবা-মায়ের ঘরে উঁকি দিয়ে মাথা কাটা অবস্থায় লাশ দেখতে পান। পরে বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়। 

এদিকে নরেশকে খুঁজতে পুলিশ অভিযান শুরু করলে তিনি নিজেই স্ত্রীর কাটা মাথা নিয়ে থানায় হাজির হন। এ সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়।

তবে হত্যার কথা স্বীকার করলেও নরেশ জানিয়েছেন, ঘটনার সময় তিনি মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন। এছাড়া তার স্ত্রীর বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্ক ছিল বলে জানান তিনি।