• শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:৫৭ দুপুর

বাংলাদেশিদের অবৈধভাবে তুরস্কে পাঠানোর অভিযোগ গ্রিসের বিরুদ্ধে

  • প্রকাশিত ১২:৪০ দুপুর নভেম্বর ১৫, ২০১৯
অবৈধ অভিবাসী
প্রতীকী ছবি/এএফপি

২০১৮ সালের ১ নভেম্বরের আগ পর্যন্ত এক বছরে ৫৮ হাজার ২৮৩ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীকে তুরস্কে পাঠিয়েছে গ্রিস

বাংলাদেশিসহ প্রায় ৬০ হাজার অভিবাসনপ্রত্যাশীকে গ্রিস অবৈধভাবে তুরস্কে পাঠিয়ে দিয়েছে বলে দাবি করেছে তুরস্কের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়৷ তবে এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছে গ্রিস৷

জার্মান ম্যাগাজিন স্পিগেলের বরাত দিয়ে বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) এমন খবর জানিয়েছে আরেক জার্মান গণমাধ্যম ডয়চে ভেলে৷

তুরস্কের অভিযোগ, গ্রিস অভিবাসনপ্রত্যাশীদের আবেদন ঠিকভাবে যাচাই করেনি৷

ইউরোপীয় ও আন্তর্জাতিক আইন বলছে, অভিবাসীরা কোনো দেশে গেলে তাদের অন্যদেশে না পাঠিয়ে আশ্রয় আবেদন যাচাই করতে হবে৷

তুরস্কের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নথি বলছে, ২০১৮ সালের ১ নভেম্বরের আগ পর্যন্ত এক বছরে ৫৮ হাজার ২৮৩ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীকে তুরস্কে পাঠিয়েছে গ্রিস৷ এদের মধ্যে পাকিস্তানিদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি৷ তবে বাংলাদেশ, সোমালিয়া এবং আলজেরিয়ারও অনেক মানুষ রয়েছেন৷ সিরিয়ার আছেন প্রায় সাড়ে চার হাজার মানুষ৷

তুরস্কের কর্মকর্তারা বলছেন, গ্রিস থেকে পাঠানো ব্যক্তিদের বেশিরভাগকে যার যার দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে৷ আর সিরীয়দের তুরস্কের একটি শহরে পাঠানো হয়েছে, যেখানে তারা শরণার্থী হিসেবে নিবন্ধিত ছিলেন৷

গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী কেরিয়াকস মিতসোতাকিস তুরস্কের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন৷ তিনি বলছেন, “যারা শরণার্থী সংকটকে ব্যবহার করেছে তাদের গ্রিস সম্পর্কে বলার সময় সাবধান থাকা উচিত৷”

তবে গ্রিস অনেক বছর ধরেই এভাবে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের ফেরত পাঠিয়ে থাকে বলে স্পিগেলের প্রতিবেদনে অভিযোগ করা হয়েছে৷