• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:১৮ রাত

সাড়ে ৭ কেজি ওজনের কিডনি!

  • প্রকাশিত ০৮:২৬ রাত নভেম্বর ২৫, ২০১৯
অপারেশন টেবিল
প্রতীকী ছবি: সংগৃহীত

দু'টি সদ্যজাত শিশুর ওজনের চেয়েও কিডনিটির ওজন ছিল বেশি

৫৬ বছর বয়সী এক ব্যক্তির শরীর থেকে ৭ দশমিক চার কেজি ওজনের একটি কিডনি অস্ত্রোপচার করে বাদ দিয়েছেন ভারতের দিল্লি শহরের একটি হাসপাতালের চিকিৎসকরা। বলা হচ্ছে, এটি সর্বোচ্চ ওজনের মানব কিডনি। জানা গেছে, অটোসোম্যাল ডমিন্যান্ট পলিসাইস্টিক কিডনি ডিজিজ নামে জন্মগত রোগে ভুগছিলেন ওই ব্যক্তি। এই রোগে দু'টি কিডনিই ফুলে ওঠে এবং রেচনক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হয়।

সোমবার (২৫ নভেম্বর) দিল্লির স্যার গঙ্গা রাম হাসপাতালে দুই ঘণ্টাব্যাপী অস্ত্রোপচারটি সম্পন্ন হয় বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি।

হাসপাতালের ইউরোলজি বিভাগের চিকিৎসক ড. শচিন কাঠুরিয়া জানিয়েছেন, প্রায় দুই ঘণ্টার অস্ত্রোপচারে ওই ব্যক্তির শরীর থেকে কিডনিটি অপসারণ করা হয় যা প্রায় তার পেটের ভেতরে ঢুকে গিয়েছিল।

তিনি বলেন, “দু'টি সদ্যজাত শিশুর ওজনের চেয়েও ওই কিডনিটির ওজন ছিল বেশি।”

উল্লেখ্য, স্বাভাবিকভাবে মানুষের একটি কিডনির ওজন হয় ১২০ থেকে ১৫০ গ্রাম। কিন্তু অপসৃত ওই কিডনিটির দৈর্ঘ্য ছিল ৩২ সেন্টিমিটার এবং এটি প্রস্থে ছিল ২১ দশমিক আট সেন্টিমিটার। এজন্যই একে বলা হচ্ছে এখন পর্যন্ত দেখা সবচেয়ে বড় কিডনি।

ড. কাঠুরিয়া আরও বলেন, “অস্ত্রোপচারের আগে করা স্ক্যানে বড় একটি কিডনি দেখা যাচ্ছিল। কিন্তু সেটা যে এতো বড় হবে আমরা কল্পনা করিনি।”

এদিকে, গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস বলছে, এর আগে ২০১৭ সালে ৪ দশমিক ২৫ কেজি ওজনের একটি কিডনি অপসারণ করেছিলেন চিকিৎসক। দিল্লির হাসপাতালে অপসারণ করা কিডনির ওজন এর চেয়েও বেশি হওয়ায় গিনেস বুক কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করার কথা ভবছেন সেখানকার চিকিৎসকেরা।