• শনিবার, জানুয়ারী ১৮, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:০৩ দুপুর

হায়দ্রাবাদে গণধর্ষণের পর হত্যা: অভিযুক্ত ৪ জনই পুলিশের গুলিতে নিহত

  • প্রকাশিত ০৪:৩৩ বিকেল ডিসেম্বর ৬, ২০১৯
সংবাদ সম্মেলনে
সাংবাদিকদের সাথে কথা বলছেন পুলিশ কমিশনার ভি সি সাজানার। সংগৃহীত

পুলিশের অস্ত্র কেড়ে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন চার অভিযুক্ত

ভারতের হায়দ্রাবাদের তেলেঙ্গানায় এক তরুণী চিকিৎসককে গণধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার চারজন পুলিশের সঙ্গে “বন্দুকযুদ্ধে” নিহত হয়েছে। শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) ভোরে এই ঘটনা ঘটে।

এনডিটিভির একপ্রতিবেদনে বলা হয়, হায়দ্রাবাদ পুলিশ জানায়, অভিযুক্ত চারজনকে গ্রেপ্তারের পর শুক্রবার ভোর রাত ৩টার দিকে তদন্তের উদ্দেশে ঘটনাস্থলে নিয়ে যাওয়া হয়। হায়দ্রাবাদ থেকে প্রায় ৬০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ওই এলাকা থেকেই এক সপ্তাহ আগে উদ্ধার করা হয়েছিল তরুণীর দগ্ধ লাশ।

সেখানে পৌঁছে আসামিরা অস্ত্র কেড়ে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ গুলি চালায় এবং তাতে চারজন নিহত হয় বলে জানান পুলিশ কমিশনার ভি সি সাজানার। এসময় পুলিশের ২ জন সদস্যও আহত হন।

এর আগে গত ২৮ নভেম্বর রাতে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। হায়দ্রাবাদের কাছে ২৭ বছর বয়সী এক তরুণী চিকিৎসককে টুল-বুথের কাছে স্কুটার রেখে যেতে দেখে ওই চার অভিযুক্ত ব্যক্তি। পেশায় তারা ট্রাকচালক ও খালাসি। তারা ইচ্ছাকৃতভাবে তার স্কুটারের টায়ার পাংচার করে দিয়ে ওই নারীর ফিরে আসার জন্য অপেক্ষা করতে থাকে। তিনি ফিরে আসার পর অভিযুক্ত চারজন তাকে সাহায্য করার ভান দেখিয়ে এগিয়ে আসে। তারপর চারজনে মিলে গণধর্ষণ করে জীবন্ত পুড়িয়ে দেয় ওই পশু চিকিৎসককে। পরে ওই চিকিৎসকের পোড়া মৃতদেহ উদ্ধার করা হলে তেলেঙ্গানা জুড়ে তুমুল বিক্ষোভ শুরু হয়।