• সোমবার, জানুয়ারী ২০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৫ রাত

বানরের কবল থেকে বাঁচতে কুকুরকে সাজানো হলো বাঘ!

  • প্রকাশিত ০৭:৫২ রাত ডিসেম্বর ১১, ২০১৯
কুকুর বাঘ
ছবি: সংগৃহীত

গায়ের রং পরিবর্তনে কুকুরটির কোনো ক্ষতিই হয়নি

ফসলের ক্ষেতে একপাল বানরের নিয়মিত আক্রমণে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিলেন ভারতীয় কৃষক শ্রীকান্ত গৌড়া। অবশেষে তিনি বেছে নেন এক অভিনব পন্থা। নিজের পালিত কুকুরটিকে তিনি সাজালেন বাঘের সাজে!

ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, কর্নাটক রাজ্যের শিভামোজ্ঞা এলাকার ওই কৃষকের এমন কাণ্ড দেশ ছাড়িয়ে ছড়িয়ে পড়েছে বিদেশেও। নিউইয়র্ক পোস্টের মতো একাধিক বিদেশি গণমাধ্যম বিষয়টি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে। কুকুরকে রং করতে তিনি ব্যবহার করেন হেয়ার ডাই। জন্মগতভাবেই কুকুরটির গায়ের পশমের রং ছিল লালচে। তাই সহজেই তার ওপর কালো রংয়ের হেয়ার ডাই ব্যবহার করে ডোরাকাটা বাঘের রূপ দিতে পেরেছেন শ্রীকান্ত। আশা ছিল, এমন গায়ের রংয়ের কারণে ফসলের ক্ষেতে হামলা চালানো বানরদের সহজেই তাড়াতে পারবে কুকুরটি।

ছবি: সংগৃহীতএমন অদ্ভুত বুদ্ধি কোত্থেকে পেলেন সে সম্পর্কে সাংবাদিকদের ওই কৃষক বলেন, বছর চারেক আগে উত্তরা কান্নাডা এলাকায় বেড়াতে গিয়ে এক কৃষককে তিনি দেখেছিলেন একটি পুতুলের গায়ে বাঘের রং দিয়ে বানরদের বোকা বানাতে। শুনতে আজব লাগলেও নিজে প্রয়োগ করে দেখলেন পদ্ধতিটি আসলেই কাজ করে। কিন্তু এও বুঝতে পারলেন বেশিদিন এভাবে বানরের মতো চালাক প্রাণীকে বোকা বানিয়ে রাখা যাবে না।

তাই এ বছর নিজের পোষা কুকুরটিকে ছোটখাটো বাঘের সাজে সাজিয়ে ফেলেন তিনি। সেইসঙ্গে আসল বাঘ আর তার নকল বাঘের কিছু ছবি টানিয়ে দেন ক্ষেতের বিভিন্ন জায়গায়।

জানা গেছে, গায়ের রং পরিবর্তনে হেয়ার ডাই ব্যবহার করায় কুকুরটির কোনো ক্ষতিই হয়নি। আর এই রং কয়েকমাস পর্যন্ত থাকে।

এই পদ্ধতিতে আশানুরূপ সাফল্য পেয়েছেন শ্রীকান্ত। তাই অন্য কৃষকরাও ধীরে ধীরে তার পথ অনুসরণ করতে শুরু করেছেন।