• বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:২৭ রাত

মোদীকে নাসিরুদ্দিন শাহ: ছাত্রজীবন কাটালে তো ছাত্রদের বুঝবেন

  • প্রকাশিত ০১:৩৭ দুপুর জানুয়ারী ২১, ২০২০
নাসিরুদ্দিন শাহ
প্রবীণ অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ সংগৃহীত

‘ভারতের বর্তমান সরকারের একটি প্রধান বৈশিষ্ট্যই হলো ছাত্রসমাজ ও সুশীলসমাজের প্রতি বিদ্বেষ। তারা নিজেরা কখনও ছাত্র ছিলেন না, সেজন্যই হয়তো এই বিদ্বেষ’

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশ্যে প্রবীণ অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ বলেছেন, নিজে ছাত্র ছিলেন না বলেই বোধহয় ছাত্রসমাজের প্রতি তার কোনও সহানুভূতি নেই। । 

সোমবার (২০ জানুয়ারি) ভারতীয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল “দ্য ওয়ার”কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই মন্তব্য করেন বলে জানায় আনন্দবাজার।

বরাবরই নিজের মতামত জোরের সঙ্গে জানানোর জন্য পরিচিত নাসির বলেন, তিনি নিজেকে কোনও দিনও মুসলিম ভাবেননি। আজও ভাবেন না। সচেতন নাগরিক হিসেবেই ক্রুদ্ধ বোধ করছেন। 

স্পষ্ট ভাষায় তিনি বলেন, ‘‘জানি না আমার বার্থ সার্টিফিকেট আছে কিনা। এতবছর এদেশে কাজ করছি। পরিবারের বাকিরা কেউ পুলিশে, কেউ প্রশাসনে, কেউ সেনাবাহিনীতে কাজ করে এসেছে। আজ যদি ভারতীয়ত্বের প্রমাণ দিতে হয়, তাতে উদ্বেগ নয় ক্রোধই জন্মায়। আমি উদ্বিগ্ন নই, আমি ক্রুদ্ধ।’’

দেশটিতে সম্প্রতি পাস হওয়া সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) নিয়ে দেশব্যাপী প্রতিবাদ আন্দোলনের প্রসঙ্গ উঠলে নাসির যোগ করেন, “বর্তমান সরকারের একটি প্রধান বৈশিষ্ট্যই হলো ছাত্রসমাজ ও সুশীলসমাজের প্রতি বিদ্বেষ। তারা নিজেরা কখনও ছাত্র ছিলেন না, বিদ্যাচর্চায় আগ্রহ দেখাননি কখনও, সেজন্যই হয়তো এই বিদ্বেষ। ছাত্ররা হল সেই গোষ্ঠী, যারা চিন্তা করে দেশের ভবিষ্যৎ নিয়ে। বড় হলে তাদের জন্য কী ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করছে, এটা তাদের ভাবতে হয়। প্রধানমন্ত্রী সেই গোষ্ঠীর অংশ ছিলেন না তাই তাদের প্রতি ওর সহানুভূতিও নেই। রাষ্ট্রবিজ্ঞানের ডিগ্রির কথা সামনে আসার আগে উনি নিজে কিন্তু বলতেন আমি পড়াশোনাই করিনি।”