• সোমবার, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:০৬ রাত

হোমওয়ার্ক না করায় ৮ বছরের শিশুকে ৪৫০ বার ওঠ-বস!

  • প্রকাশিত ০৩:৫৮ বিকেল জানুয়ারী ২৩, ২০২০
শিশু নির্যাতন
প্রতীকী ছবি। সংগৃহীত

আগেও ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে শিশুদের নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছিল। গত ডিসেম্বর মাসেই এক শিক্ষার্থীকে নগ্ন করে বেত দিয়ে পেটানোর অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে

হোমওয়ার্ক করে না নিয়ে আসায় তৃতীয় শ্রেণীর এক শিশুকে ৪৫০ বার ওঠ-বস করিয়ে “উচিত শিক্ষা” দিয়েছেন এক গৃহশিক্ষিকা। এই নিষ্ঠুরতার জেরে পা অসম্ভবরকম ফুলে যাওয়ায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। 

এই নির্মম ঘটনা ঘটেছে ভারতের মহারাষ্ট্রের ঠানেতে। পরবর্তীতে ওই শিক্ষিকাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এক প্রতিবেদনে এখবর জানিয়েছে আনন্দবাজার।

বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ঠানের শান্তিনগর এলাকার বাসিন্দা ওই শিশুটি এক শিক্ষিকার কাছে পড়ত। গত শুক্রবার তার কাছে পড়তে গিয়েই শাস্তির মুখে পড়ে আটবছরের ওই শিশুটি। হোমওয়ার্ক না করে নিয়ে যাওয়ায় ওই শিশুকে ৪৫০ বার ওঠ-বস করান লতা নামে ওই গৃহশিক্ষিকা। পরিস্থিতি এমন হয় যে, টিউশন থেকে ফিরে ভাল করে হাঁটতে পারছিল না শিশুটি। তার পা ভীষণভাবে ফুলে যায়। পরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়।

শিশুটির মা জানান, বিষয়টি নিয়ে বলতে গেলে নির্বিকার ভাব দেখান ওই শিক্ষিকা। এরপর, শনিবার ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে নয়ানগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। পুলিশ ওই শিক্ষিকাকে গ্রেফতার করেছে। 

অবশ্য এই প্রথম নয়, আগেও ওই গৃহশিক্ষিকার বিরুদ্ধে শিশুদের নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছিল। ডিসেম্বর মাসেই এক শিক্ষার্থীকে নগ্ন করে বেত দিয়ে পেটানোর অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে।