• সোমবার, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪০ রাত

চীনে করোনাভাইরাস: উহানে আটকা ২৪৫ বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

  • প্রকাশিত ০৯:৩৭ রাত জানুয়ারী ২৫, ২০২০
করোনাভাইরাস-উহান
চীনের উহান বিমানবন্দরে যাত্রীদের পরীক্ষা করছেন এক স্বাস্থ্যকর্মী। এএফপি

বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের সহায়তা করতে তাদের সাথে কর্মকর্তারা নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন বলে বেইজিংয়ের বাংলাদেশ দূতাবাস জানিয়েছে

করোনাভাইরাসের সিলগালা করে দেওয়া চীনের উহান প্রদেশে ২৪৫ বাংলাদেশি শিক্ষার্থী আটকা পড়েছেন। শনিবার (২৫ জানুয়ারি) চীনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাহবুব উজ জামান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন বলে ইউএনবি জানিয়েছে।

বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের সহায়তা করতে তাদের সাথে কর্মকর্তারা নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন বলে জানান তিনি।

মাহবুব উজ জামান ইউএনবি’কে বলেন, "করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাবের ফলে উহানে আটকা পড়েছেন ২৪৫ শিক্ষার্থী। আমরা চীনের হুবেই ইউনিভার্সিটির কয়েকজন শিক্ষার্থীর সাথে কথা বলেছি। সেইসাথে বেইজিংয়ের বাংলাদেশ দূতাবাসের সাথে সারাদিন যোগযোগ করার জন্য একটি হটলাইন (+৮৬-১৭৮০১১১৬০০৫) নাম্বার খোলা হয়েছে।"

চীন সরকারের তথ্যমতে, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সেদেশে এখন পর্যন্ত ৪১ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এক দিনে আগেও যা ছিল ২৬ জন।

এছাড়া, চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপ-পরিচালক বেইজিংয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসকে পরিস্থিতি সম্পর্কে নিয়মিত সর্বশেষ খবর জানাচ্ছেন।

দূতাবাস জানিয়েছে চীনে নববর্ষের ছুটির কারণে বেশিরভাগ বাংলাদেশি শিক্ষার্থী ছুটিতে আছেন এবং ছুটি কাটাতে দেশে গেছেন।

এদিকে, করোনাভাইরাস সংক্রমণের কেন্দ্রস্থল চীনের উহান শহরে গত দু’দিন ধরে আটকে পড়া বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের অনেকে দেশে ফিরে আসার আকুতি জানিয়ে ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বাংলাদেশ দূতাবাসের সাহায্য চেয়েছেন।

উহান প্রদেশের ইয়াংটজি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সজিব হোসেনের ফেসবুক পোস্ট। সংগৃহীত

শিক্ষার্থীদের পক্ষে, উহান প্রদেশের ইয়াংটজি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সজিব হোসেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে সহায়তা চেয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন।

ওই পোস্টে সজিব লিখেছেন, "গত তিনদিন ধরে উহান শহর প্রায় বন্ধ হয়ে আছে। শহরে কোথাও কোনো গাড়ি চলাচল করছে না। কোনো খাবার এবং মুখে ব্যবহারের মাস্ক আসছে না। আমরা বাইরে যেতে পারছি না, আমরা গত একসপ্তাহ ধরে খাবারের সংকটে ভুগছি এবং এ পরিস্থিতি অব্যাহত থাকবে।"

তিনি আরও লেখেন, "এ প্রদেশে পাঁচ শতাধিক বাংলাদেশি শিক্ষার্থী বসবাস করছেন। আমাদের কী হবে তা আমরা জানি না। আমাদের জন্য দোয়া করবেন।"

ওই পোস্টের নিচে কয়েকজনের নামসহ মোবাইল নাম্বার দিয়েছেন। সেগুলো হলো- সজিব হোসেন +৮৬-১৫৫২৭২১৩১৫১৪, নাঈম হাসান +৮৬-১৮৬০২৭৩৬৩৯৬ এবং রেজা সুলতানুজ্জামান +৮৬-১৩১২৯৯১৫১৪২।