• শুক্রবার, এপ্রিল ০৩, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৫৩ দুপুর

যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্তে বিশ্বের দীর্ঘতম চোরাচালান সুরঙ্গ!

  • প্রকাশিত ০৩:৪২ বিকেল ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২০
সুরঙ্গ
প্রায় পৌনে একমাইল দীর্ঘ এই টানেলটি যুক্তরাষ্ট্রের সান ডিয়াগু ও মেক্সিকোর টিজুয়ানার একটি শিল্প এলাকায় অবস্থিত। সংগৃহীত

প্রায় পৌনে একমাইল দীর্ঘ এই সুরঙ্গটি মাটি থেকে ৭০ ফুট নিচ দিয়ে গিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সীমানা প্রাচীর অতিক্রম করেছে!

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো সীমান্তে বিশ্বের দীর্ঘতম চোরাচালান টানেলের সন্ধান মিলেছে বলে ইউএস বর্ডার পেট্রোলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। প্রায় পৌনে একমাইল দীর্ঘ এই টানেলটি যুক্তরাষ্ট্রের সান ডিয়াগু ও মেক্সিকোর টিজুয়ানার একটি শিল্প এলাকায় অবস্থিত।

সুরঙ্গটিতে রেল কার্ট সিস্টেম, বায়ু চলাচল ব্যবস্থা, উচ্চ ভোল্টেজের বৈদ্যুতিক তার, সুরঙ্গমুখে একটি এলিভেটর ও ড্রেনেজ সিস্টেম রয়েছে। তবে যুক্তরাষ্ট্রে কোনও সুরঙ্গমুখ খুঁজে পাওয়া যায়নি। এছাড়াও অনুসন্ধানের সময় টানেলে কোনও পলায়নকারী কিংবা অবৈধ মাদকসামগ্রী খুঁজে পাওয়া যায়নি।

গতবছরের আগস্টে সুরঙ্গটি আবিষ্কৃত হওয়ার পর মেক্সিকান আইন প্রয়োগকারী বাহিনী এর প্রবেশপথ খুঁজে পান এবং যুক্তরাষ্ট্র এর গতিপথ ও মোট দৈর্ঘ্য নির্ণয় করে। টানেলটির মোট দৈর্ঘ্য ৪৩০৯ ফুট। বর্তমানে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা টানেলটিও যুক্তরাষ্ট্রের সান ডিয়াগুতে অবস্থিত। এটি আবিষ্কৃত হয়েছিল ২০১৪ সালে, যার দৈর্ঘ্য ২৯৬৬ ফুট।

নতুন আবিষ্কৃত টানেলটির উচ্চতা সাড়ে পাঁচ ফুট ও ২ ফুট প্রশস্ত এবং সম্পূর্ণ টানেল ভূমি থেকে ৭০ ফুট নিচ দিয়ে বয়ে গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বর্ডার পেট্রোলবাহিনীর সদস্য ও অনুসন্ধানীদলের সুপারভাইজার ল্যান্স লিনোইর বলেন, "এবারেরটি পূর্বের টানেলকে ছাড়িয়ে গেছে যেটা এর আগে দীর্ঘতম ছিল। আমরা সত্যিই ভাবিনি এটা এতদূর যাবে। তারা আমাদেরকে অবাক করছে।"

টানেলটি মাটি থেকে বেশ কয়েক ফুট নিচ দিয়ে প্রসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সীমানা প্রাচীর অতিক্রম করেছে। এধরনের টানেলকে অনেকসময় “গফার (এক ধরনের ইঁদুরজাতীয় প্রাণী) টানেল”ও বলা হয়।