• মঙ্গলবার, এপ্রিল ০৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:১৪ রাত

সম্রাট শাহজাহানের ছেলের কবর খুঁজছে মোদি সরকার

  • প্রকাশিত ০৭:৫৬ রাত ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০
মোঘল সম্রাট হুমায়ূনের কবর
মোঘল সম্রাট হুমায়ূনের কবর দেখতে যান ভারতের পর্যটন কেন্দ্রের কর্মকর্তারা। সংগৃহীত

সম্রাট হুমায়ূনের কবরের পাশেই রয়েছে মোঘল শাসকদের প্রথম কবরস্থান

মোঘল সম্রাট শাহজাহানের ছেলে দারা শিকোহ'এর সমাধির অনুসন্ধান করছে ভারত সরকার। আর এ কাজে সাত সদস্যের একটি কমিটিও গঠন করেছে দেশটি। 

সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, আওরঙ্গজেবের ভাই দারা হিন্দু ধর্মীয় গ্রন্থ ভগবত গীতার ফারসি অনুবাদ করেন। এছাড়া তিনি ৫২ উপনিষদেরও অনুবাদ করেছিলেন। তাই দেশটির সংস্কৃতির জন্য তিনি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে মোদি সরকার। এর জের ধরেই নেওয়া হয়েছে এমন উদ্যোগ। 

জানা গেছে, সম্রাট হুমায়ূনের কবরের পাশেই রয়েছে মোঘল শাসকদের প্রথম কবরস্থান। সেখানে ১৪০টি কবর রয়েছে। তবে সেগুলোর মধ্যে কোনটি দারার তা খুঁজে বের করা জটিল। কারণ, সেখানের কবরগুলোর বেশিরভাগে কোনো নাম লেখা নেই। এ কাজটি করতে গঠিত কমিটিকে তিন মাসের সময় দেওয়া হয়েছে। 

সম্রাট শাহজাহানকে নিয়ে সপ্তদশ শতাব্দীতে রচিত বই শাহজাহাননামা'র তথ্য অনুযায়ী, আওরঙ্গজেবের কাছে যুদ্ধে হেরে যাওয়ার পরে দারার শিরোচ্ছেদ করে আগ্রায় পাঠানো হয়। দেহের বাকি অংশটা হুমায়ূনের কবরের আশেপাশেই কোথাও কবর দেওয়া হয়েছিল। 

এ বিষয়ে পুরাতত্ত্ববিদ কে কে মুহাম্মদ জানান, দারার কবরের সন্ধান করা বেশ জটিল। ১৬৫২ সালের কাছাকাছি সময়ের স্থাপত্যশৈলীর ভিত্তিতে একটি ছোট কবর চিহ্নিত করা হয়েছে। তবে কবরের গায়ে কিছুই লেখা নেই। তাই এটিই সেই কবর কিনা তা বলা মুশকিল। 

দারা শিকোহর কবর অনুসন্ধানের দলটিতে রয়েছে-ডা. আরএস ভট্ট, কে. কে মুহাম্মদ, ডা. বিআর মণি, ডা. কেএন দত্ত, ডা. বি.এম. পান্ডে, ডা. জামাল হাসান এবং অশ্বিনী আগরওয়াল। 

১৬৫৯ সালের ৩০ আগস্টে দারা শিকোহ'র মৃত্যু হয়। শাহজাহানের মৃত্যুর পরে তার চার সন্তানের মধ্যে সিংহাসনের লড়াই শুরু হয়। দারার কাছে আরঙ্গজেবের চেয়ে বড় সেনাদল থাকলেও তার দুর্বল রণনীতি ও কাছের মানুষদের বিশ্বাসঘাতকতায় কারণে হেরে যান। এরপর আওরঙ্গজেবের নির্দেশে তার শিরোচ্ছেদ করা হয়।