রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুতে বিশ্ব নেতাদের শোক

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

দীর্ঘ সময় ধরে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের রানির আসনে থাকা কুইন দ্বিতীয় এলিজাবেথ বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) ৯৬ বছর বয়সে মারা গেছেন। এলিজাবেথের মৃত্যুতে তার বড় ছেলে চার্লস (৭৩) রাজার মর্যাদা পাবেন। তিনি হবেন যুক্তরাজ্যের সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী এবং অস্ট্রেলিয়া, কানাডা এবং নিউজিল্যান্ডের মতো ১৪টি দেশের হেড অব স্টেট।

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন বিশ্বনেতারা। অনেকে রানির সঙ্গে সাক্ষাতের স্মৃতিচারণা করেছেন।

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, দ্বিতীয় এলিজাবেথ ছিলেন রানির চেয়েও বেশি কিছু। তিনি একটি যুগের নির্ধারক। ২০২১ সালে যুক্তরাজ্য সফরের কথা স্মরণ করে বাইডেন বলেন, তিনি আমাদের বুদ্ধির দীপ্তি দিয়ে মুগ্ধ করেছিলেন, উদারতা দিয়ে আমাদের অনুপ্রাণিত করেছিলেন। 

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ এলিজাবেথের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। তিনি এলিজাবেথকে দয়ালু হৃদয়ের রানি হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন এবং ফ্রান্সের একজন বন্ধু হিসেবে উল্লেখ করেছেন। 

জার্মানির চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎজও রানির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। এক শোকবার্তায় তিনি বলেছেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ভয়াবহতার পরে জার্মান-ব্রিটিশ পুনর্মিলনের বিষয়ে তার প্রতিশ্রুতি অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বেশ কয়েকবার রানি এলিজাবেথের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। পুতিন একবার রানিকে ১৪ মিনিট অপেক্ষায় রেখেছিলেন বলেও খবর শোনা যায়। মায়ের মৃত্যুতে প্রিন্স চার্লসের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট।

এক বিবৃতিতে পুতিন বলেছেন, যুক্তরাজ্যের সাম্প্রতিক ইতিহাসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাগুলো রানির নামের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্টকি এক টুইট বার্তায় গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছন।

কানাডার প্রেসিডেন্ট জাস্টিন ট্রুডো সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, তিনি ছিলেন মহান ও সুন্দর একজন নারী। তার মতো কেউ ছিল না। তিনি ছিলেন আমার পছন্দের মানুষদের মধ্যে অন্যতম। তাকে মিস করব।

নেদারল্যান্ডসের রাজা উইলেম-আলেক্সান্ডার ও রানি ম্যাক্সিমা এলিজাবেথের স্মরণে বলেছেন, তিনি ছিলেন নিজ সিদ্ধান্তে অবিচল ও জ্ঞানী একজন শাসক। তার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা। 

বেলজিয়ামের রাজা ফিলিপ ও রানি ম্যাথিলডি বলেন, তিনি ছিলেন অসাধারণ ব্যক্তিত্বের অধিকারী। রাজত্বজুড়ে তিনি সাহস দেখিয়েছেন। 

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যুক্তরাজ্য সফরকালে রানির সঙ্গে স্মরণীয় সাক্ষাতের স্মৃতিচারণা করে শোক জানিয়েছেন।

এছাড়া রানির মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ব্রিটেনের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি সময় সিংহাসন অলংকৃত করে রেখেছিলেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। মাস কয়েক আগেই তার সিংহাসনে আরোহণের ৭০ বছর উদযাপন করা হয়েছিল। ১৯৫২ সালে ব্রিটিশ সিংহাসনে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অভিষেক ঘটে। 

ADVERTISEMENT

×