Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ট্রাম্পকে 'সরানোর পরিকল্পনা’, অ্যাটর্নি জেনারেলের অস্বীকার

তবে নিজের বিরুদ্ধে আনা এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন রসেনস্টেইন। তিনি বলেছেন এসব কথা একেবারেই সত্য নয়।

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:০৫ এএম

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সাংবিধানিক ক্ষমতাবলে উৎখাতের ‘পরিকল্পনা’ করা হয়েছিল বলে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমস। আর এই পরিকল্পনার পেছনে ছিলেন নাকি দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল রড রসেনস্টেইন। শুধু তাই নয়। রসেনস্টেইন প্রেসিডেন্টের কার্যালয় হোয়াইট হাউসের ভেতরের ‘গোলযোগ’ ফাঁস করতেও চেয়েছিলেন বলে উল্লেখ করে নিউইয়র্ক টাইমস। 

তবে নিজের বিরুদ্ধে আনা এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন রসেনস্টেইন। তিনি বলেছেন এসব কথা একেবারেই সত্য নয়।

নিউইয়র্ক টাইমসের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়,  গত বছর যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইয়ের তৎকালীন প্রধান জেমস কমেকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বরখাস্ত করার পরই এমন পরিকল্পনা করেন রসেনস্টেইন। মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে দেশটির সংবিধানের ২৫তম সংশোধনী ব্যবহারের জন্য ক্যাবিনেট সদস্যদের রাজি করাতে আলোচনাও করেন তিনি। ২৫তম সংশোধনীতে বলা আছে, প্রেসিডেন্ট তার দায়িত্ব পালনে অযোগ্য বিবেচিত হলে তাকে পদচ্যুত করা যাবে। 

এ ছাড়াও রসেনস্টেইন গোপনে ট্রাম্পের কথোপকথন রেকর্ড করার জন্য পরামর্শ দেন। এর উদ্দেশ্য ছিল হোয়াইট হাউসের ভেতরের অশান্তি ও ভুলগুলো প্রকাশ্যে আনা।

বেশ কয়েকটি সূত্রের বরাত দিয়ে নিউইয়র্ক টাইমস জানায়,  গত বছরের মে মাসে মার্কিন বিচার বিভাগ ও এফবিআইয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে এই বিষয়ে আলোচনা করেন রসেনস্টেইন।

যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি গণমাধ্যম জানায়, এফবিআইয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত প্রধান অ্যান্ড্রু ম্যাকাবের প্রস্তুত করা কিছু মেমো থেকে নিউইয়র্ক টাইমসের হাতে উঠে এসেছে এই তথ্যগুলো। চলতি বছরেই তাকে বহিস্কার করেন ট্রাম্প।  তবে ম্যাকাবের আইনজীবী মাইকেল ব্রমউইচ জানিয়েছেন, কীভাবে ওই মেমোগুলো কোনো গণমাধ্যমের হাতে গেল তা নিয়ে ধারণা নেই তার মক্কেলের।

এ বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল রসেনস্টেইন বলেন, ‘নিজেদের স্বার্থ হাসিল করতে চায় এবং বিচার বিভাগের বিপক্ষে পক্ষপাতী এমন সূত্রের কাছ থেকে পাওয়া খবরে আমি কোনো ধরনের মন্তব্য করবো না।’

সরকারি এই আইনজীবী আরও বলেন, ‘আমাকে বিষয়টি পরিষ্কার করতে দিন। প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত যোগাযোগের ভিত্তিতে বলবো, ২৫তম সংশোধনী প্রয়োগের কোনো অবকাশ নেই।’


About

Popular Links