Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

নাইজেরিয়ায় স্কুল থেকে ৪০ শিক্ষক-শিক্ষার্থী অপহৃত

গত কয়েক বছরে নাইজেরিয়ায় স্কুল শিক্ষার্থীদের অপহরণ আশংকাজনক হারে বেড়েছে, একাধিকবার দেশটির বিভিন্ন প্রান্তে এমন ঘটনা ঘটেছে

আপডেট : ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১১:২৫ এএম

নাইজেরিয়ার একটি স্কুল থেকে বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) ছাত্র ও শিক্ষকদের অপহরণ করে নিয়ে গিয়েছে অপহরণকারীরা। অপরাধীদের খোঁজ এখনো মেলেনি। অপহৃত অন্তত ৪০ জন। তার মধ্যে ছাত্র ও শিক্ষক সকলেই আছেন। 

নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ বুহারি পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীকে দ্রুত অপহৃতদের খুঁজে বের করার নির্দেশ দিয়েছেন। স্থানীয় মানুষের বক্তব্য, ঘটনার পেছনে কোনও অপরাধী দলের হাত রয়েছে। যদিও এখনো পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী দায় স্বীকার করেনি।

মধ্য নাইজেরিয়ায় অবস্থিত স্কুলটির নাম গভর্নমেন্ট সায়েন্স কলেজ। প্রতিদিনের মতো বুধবারও সেখানে ক্লাস শুরু হয়েছিল। প্রত্যক্ষদর্শীদের বক্তব্য, স্কুলের পেছনের জঙ্গল এলাকা দিয়ে ভিতরে ঢুকে পড়ে আততায়ীরা। তাদের হাতে আধুনিক অস্ত্র ছিল। স্কুলের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মীদের তারা পিছনের ঝোঁপে নিয়ে যায়।

 অপহরণের সময় শিক্ষার্থীরা বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে। তারই জেরে অন্তত একজন শিক্ষার্থীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। স্কুল সূত্রে জানানো হয়েছে, অপহৃতদের মধ্যে ২৬ জন ছাত্র রয়েছে। বাকি সকলেই শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী।

ঘটনার পরেই এলাকার সমস্ত স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়। উদ্বিগ্ন অভিভাবকেরা স্কুলের সামনে জড়ো হন। নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট জানিয়েছেন, পুলিশ ও নিরাপত্তাকর্মীরা দ্রুত অপহৃতদের খুঁজে বের করবে। সকলে যাতে সুস্থভাবে ফিরতে পারেন, সেদিকে নজর দেওয়া হবে। যত দ্রুত সম্ভব এ কাজ করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

গত কয়েক বছর ধরে নাইজেরিয়ায় স্কুল শিক্ষার্থীদের অপহরণের বিষয়টি চোখে পড়ার মতো বেড়েছে। এর আগেও একাধিকবার দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এমন ঘটনা ঘটেছে। সাধারণত, শিক্ষার্থীদের অপরহরণ করে বড়সড় মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা। 

দেশটির প্রেসিডেন্ট বলেছেন, স্কুল শিক্ষার্থীদের অপহরণের বিষয়টি যাতে বন্ধ হয়, তার জন্যেও পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই ধরনের সমস্ত গ্যাংকে উৎখাত করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

তবে সাধারণ গ্যাং ছাড়াও বোকো হারামের মতো গোষ্ঠী এই ধরনের কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত থাকে। বোকো হারামের মত গোষ্ঠীগুলি এধরনের কাজ করলে মুক্তিপণ দাবি করা হয় না। অতীতে তেমন ঘটনাও ঘটেছে। এবারের ঘটনায় এখনো পর্যন্ত মুক্তিপণ দাবি করেনি অপহরণকারীরা। তবে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, অপহরণকারীরা সাধারণ গ্যাংয়ের সদস্য বলেই তাদের মনে হয়েছে।

About

Popular Links