Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ইসরায়েলের নিন্দায় সৌদি আরব

সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ফিলিস্তিনিদের বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করা ছাড়াও ইসলামের অন্যতম প্রধান পবিত্র স্থানগুলোর পবিত্রতা লঙ্ঘন করছে ইসরায়েল

আপডেট : ১৭ মে ২০২১, ০৬:১২ পিএম

সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফিলিস্তিনে হামলার ঘটনায় ইসরায়েলের নিন্দা জানিয়ে সেখানে সামরিক অভিযান বন্ধের দাবি করেছেন। একইসঙ্গে, এ বিষয়ে জরুরি পদক্ষেপ নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। 

গাজায় হামলা শুরুর এক সপ্তাহ পর গত রবিবার (১৬ মে) ৫৭ সদস্যের সংগঠন ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসির) একটি জরুরি ভার্চুয়াল বৈঠকে সৌদি রাজপুত্র ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদ এই মন্তব্য করেন।

সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ফিলিস্তিনিদের বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করা ছাড়াও ইসলামের অন্যতম প্রধান পবিত্র স্থানগুলোর পবিত্রতা লঙ্ঘন করছে ইসরায়েল। 

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এই "বিপজ্জনক সংঘাত" সমাপ্তির প্রতি নিজেদের দায়িত্ব পালন করার, সামরিক অভিযান বন্ধে জরুরি ভিত্তিতে কাজ করার এবং দ্বি-রাষ্ট্রীয় সমাধানের ভিত্তিতে শান্তি আলোচনাকে পুনরুদ্ধার করার আহ্বান জানিয়েছেন আল সৌদ।

রবিবার ওআইসির বৈঠকের শুরুতেই ফিলিস্তিনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদ মালকি ইসরায়েলের হামলাকে “কাপুরুষোচিত আক্রমণ” বলে অভিহিত করেছেন।

মালকি বলেন, “ফিলিস্তিনের জনগণের উত্থান স্পষ্ট করে দিয়েছে জেরুজালেম একটি রেড লাইন। ইসরায়েলের হত্যাযন্ত্র দ্বারা আমরা নিঃশেষ হব না।”

“আমাদের আল্লাহকে বলতে হবে আমরা শেষ দিন পর্যন্ত প্রতিরোধ করব। আমরা একটি দীর্ঘমেয়াদী সমস্যার সম্মুখীন আর এটিই সমস্যার প্রধান কারণ। ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে বিনা কারণে অপরাধ সংঘটিত হয়।”

তবে গাজা উপত্যকায় ২০০৭ সালে হামাস ক্ষমতা নেওয়ার পর সেখানে মালকি'র ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের কোনও নিয়ন্ত্রণ নেই।

এদিকে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু বৈঠকে একইভাবে কঠোর অবস্থান নিয়েছেন। তিনি বলেন, “পূর্ব জেরুজালেম, পশ্চিম তীর এবং গাজায় সাম্প্রতিক বিস্তারের জন্য ইসরায়েল একাই দায়ী।”

এদিকে, বার্তা সংস্থা আইআরএনএ এর বরাত দিয়ে জানা যায়, ইরানের বিপ্লবী গার্ডস কুদস ফোর্স কমান্ডার জেরুজালেম এবং গাজায় ইসরায়েলি "অপরাধ" এর সম্মুখীন ফিলিস্তিনিদের প্রতি তেহরানের পক্ষ থেকে সমর্থন দিয়েছেন। 

সোমবার পর্যন্ত গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৯৮ জনে পৌঁছেছে। এর মধ্যে ৫৮ জন শিশুও রয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। এছাড়া ইসরায়েলেও দুই শিশুসহ ১০ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

উল্লেখ্য, গত ৭ মে জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদে রমজানের শেষ জুম্মায় আসা মুসল্লিদের উপর হামলা চালায় ইসরায়েলিরা। পরবর্তীতে সেই ঘটনার সূত্র ধরে উভয়পক্ষের মধ্যে যুদ্ধ বেঁধে যায়।

About

Popular Links